Bar Council Notice To Nirbhaya Convict's Lawyer: আদালতে জাল নথি জমা দেওয়ার অভিযোগে নির্ভয়ার ধর্ষকদের আইনজীবী এপি সিংহকে নোটিস দিল দিল্লির বার কাউন্সিল
নির্ভয়াকাণ্ডে ৪ অভিযুক্ত (Photo Credits: File Image)

নতুন দিল্লি, ১৯ জানুয়ারি: মক্কেলের হয়ে আদালতে (Court) জাল নথি জমা (Forged Documents) দেওয়ার অভিযোগে এবার নির্ভয়ার ধর্ষকদের আইনজীবীকে নোটিস দিল দিল্লির বার কাউন্সিল। তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করতে গত মাসেই বার কাউন্সিলকে নির্দেশ দিয়েছিল দিল্লি হাইকোর্ট। তার ভিত্তিতেই আইনজীবী এপি সিংহকে নোটিস পাঠানো হয়েছে। জানা গিয়েছে, আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যেই ওই তলবি নোটিসের উত্তর দিতে হবে তাঁকে।

গত বছর ১৯ ডিসেম্বর দিল্লি হাইকোর্টে একটি আবেদনপত্র জমা দেয় নির্ভয়াকাণ্ডে (Nirbhaya Gang Rape) অন্যতম অভিযুক্ত পবন গুপ্ত। পবন জানায়, ২০১২-র ১৬ ডিসেম্বর ওই ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটানোর সময় নাবালক ছিল সে। কিন্তু সেই সংক্রান্ত যে নথি সে আদালতে জমা করে, তা জাল বলে খারিজ করে দেয় আদালত। এ নিয়ে এপি সিংহকে আদালতে হাজিরা দিতে বলা হয়। তা সত্ত্বেও আদালতে হাজিরা দেননি আইনজীবী সিংহ (A P Singh)। যে কারণে তাঁকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানাও করে আদালত। বিষয়টি নিয়ে পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দেওয়া হয় বার কাউন্সিলকে। এই প্রসঙ্গে বার কাউন্সিল জানিয়েছে, ‘‘পবন কুমারের হয়ে আদালতে জাল নথি জমা দেওয়ায়, গত বছর ১৯ ডিসেম্বর এপি সিংহের বিরুদ্ধে বার কাউন্সিলকে পদক্ষেপ করার নির্দেশ দেন বিচারপতি সুরেশ কুমার কাইত। সম্প্রতি সর্বসম্মতিক্রমে বিষয়টি নিয়ে একমত হন কাউন্সিলের সদস্যরা। নোটিস পাওয়ার দু’সপ্তাহের মধ্যে তার জবাব দিতে হবে এপি সিংহকে।’’এনডিটিভির খবর অনুযায়ী, অন্যদিকে হাইকোর্টে তাঁর আবেদন ধাক্কা খেলেও, সুপ্রিম কোর্টে ফের আবেদন জানিয়েছে পবন। ঘটনার সময় নাবালক ছিল বলে সেখানেও দাবি করেছে সে। আগামী ২০ জানুয়ারি তার আবেদনের শুনানি। আরও পড়ুন: Sai Baba Birthplace Row: আজ শিরডিতে শহরজুড়ে বনধ, ভক্তগণের জন্য খোলাই থাকবে সাঁইবাবা মন্দির

বার কাউন্সিল (Bar Council) সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৯ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ আচমকাই নথিপত্র নিয়ে আদালতে হাজির হন এপি সিংহ। কিন্তু দুপুর আড়াইটে নাগাদ বিষয়টি নিয়ে শুনানি শুরু হলে আদালত কক্ষে দেখা যায়নি তাঁকে। বিচারপতি (Judge) নিজে তাঁকে ফোন করার চেষ্টা করেন। ই-মেল এবং মেসেজও পাঠান। তাতেও আদালতে হাজির হননি এপি সিংহ। তাতেই তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দেন বিচারপতি।