Vladimir Putin: ডিজেলে ভরেছে সাইবেরিয়ার নদী, দূষণ রোধে রাশিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি করলেন ভ্লাদিমির পুতিন
ভ্লাদিমির পুতিন (Photo Credits: IANS)

মস্কো, ৪ জুন: ডিজেলে ভরেছে সাইবেরিয়ান নদী। পরিস্থতি দেখে বেজায় খাপ্পা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন (Vladimir Putin)। ইতিমধ্যেই তিনি জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। একই সঙ্গে মেটাল জায়ান্ট নরিস্ক নিকলের সমালোচনা করতেও ছাড়েননি পুতিন। আর্কটিক সার্কেলের উপরের দিকটায় নরিস্ক শহরে সাইবেরিয়ান নদীর কাছেই পাওয়ার প্ল্যান্টের একটি ডিজেলের রিজার্ভার শুক্রবার ভেঙে পড়ে। এর জেরে সেই সংরক্ষণাগারে থাকা ২০ হাজার টন ডিজেলের সবটাই আশপাশে ছড়িয়ে পড়ে। বাদ যায়নি লাগোয়া নদীও। আধুনিক রাশিয়ার ইতিহাসে এটি নিঃসন্দহে দ্বিতীয় বৃহত্তম দুর্ঘটনা। এর আগে ১৯৯৪-তে এমনই একটা ঘটনা ঘটেছিল রাশিয়ার উত্তর পশ্চিমের কমি এলাকায়। সেখানে অপরিশোধিত তেলের রিজার্ভার ফেটে গিয়ে সেই সময় বিপত্তি বাধে।

নদীতে ভাসছে টন টন ডিজে. এমনিতেই করোনাতঙ্ক ও এঁটুলির আক্রমণে দিশেহারা রাশিয়া। তার মধ্যে নদীর জ্বলে এমন ভয়াবহ দূষণ ছড়িয়ে পড়ার খবর শুনেই ভিডিও কনফারেন্সে ক্ষোভ চেপে রাখতে পারেননি ভ্লাদিমির পুতিন। পাওয়ার প্ল্যান্ট নরিস্ক নিকলের কর্তৃপক্ষকে একহাত নেন। কেননা তাঁর আগেই প্রেসিডেন্ট খবর পেয়েছেন যে, রিজার্ভার ভাঙার খবর পেয়েও তা সারিয়ে তুলতে ব্যর্থ হয় প্ল্যান্ট কর্তৃপক্ষ। এবার এই গোটা এলাকা সাফসুতরো করতে যে লোক লস্কর লাগবে তারজন্যই তিনি জাতীয় স্তরে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। এই প্রসঙ্গে রাশিয়ার জরুরি অবস্থা বিষয়ক মন্ত্রী ইয়েভগেনি জিনিচ্যাভ ঘোষণা করেন, গোটা এলাকাকে পূর্বাবস্থায় ফেরাতে এই মুহূর্তে ব্যাপকহারে সাফসুতরো করা প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। গোটা অপারেশন পর্যালোচনা করতে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছাচ্ছেন খুব শিগগির।

ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়া ডিজেলের একটি ভিডিও সেদেশের সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, কীভাবে রিজার্ভার থেকে বেরনো ডিজেল বেড়ার নিচে দিয়ে গিয়ে জলাশয়ে মিশে জল দূষিত করছে। রাশিয়ার তদন্তকারী কমিটি ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় পাওয়ার প্ল্যান্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে পরিবেশ দূষণের অভিযোগে তিনটি মামলা রুজু করেছে। তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই প্ল্যান্টের এক কর্মীকে আটকও করেছে পুলিশ। তবে য়ে হারে ডিজেল নদীতে ছড়িয়ে তা ফের তুলে জলকে পূর্বাবস্থায় ফেরানো মুখের কথা নয়। তবে তেলের থেকে অনেকটাই হালকা হওয়ায় ডিজেল না ডুবে বাস্পীভূত হতে পারে, যা আরও বিষাক্ত। অনেকেই দূষণ এড়াতে পড়ে থাকা ডিজেল জ্বালিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন, তবে তা বেশ বিপদের।