Khyber Pakhtunkhwa: খাইবার পাখতুনখোয়া দখল করে শরিয়া আইন চালু করতে চায় পাকিস্তানি তালিবান
প্রতীকী ছবি

ইসলামাবাদ: পাকিস্তানের (Pakistan) পরিস্থিতি (condition) ক্রমশ ভয়ানক আকার ধারণ করছে। একদিকে দেশে দেখা দিয়েছে চরম আর্থিক সঙ্কট ও খাদ্যাভাব। এর ফলে অভ্যন্তরীণ রাজনীতিও টালমাটাল অবস্থায় রয়েছে। এর মধ্যেই জানা গেল, আফগানিস্তান (Afghanistan) সীমান্তের (border) লাগোয়া খাইবার পাখতুনখোয়া (Khyber Pakhtunkhwa) এলাকাকে শাহবাজ শরিফের সরকার (Shehbaz Sharif-led government) থেকে মুক্ত করে সেখানে শরিয়া আইন (Sharia rule) চালু করতে চাইছে তেহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তান (Tehreek-i-Taliban Pakistan)।

সম্প্রতি আমেরিকার স্বরাষ্ট্র দফতরের (US State Department report) থেকে প্রকাশিত একটি রিপোর্টে জানা গেছে, পাকিস্তানজুড়েই সন্ত্রাসবাদী কাজকর্ম অনেকগুণে বাড়িয়েছে তেহেরিক-ই-তালিবান পাকিস্তান। আর এবার তাদের পরিকল্পনা হল, খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশ থেকে শাহবাজ শরিফের নেতৃত্বাধীন সরকারকে ছুঁড়ে (throw) ফেলে দিয়ে সেখানকার প্রশাসন (state) ও সেনার (military) বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদী হামলা চালিয়ে ওই এলাকায় শরিয়া আইন চালু করা ।

ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, এই বিষয়ে তেহেরিক-ই-তালিবান পাকিস্তানকে সম্পূর্ণ মদত দিচ্ছে আল কায়েদা (al-Qaeda)। কুখ্যাত এই আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনের কিছু নেতা তেহেরিক-ই-তালিবানকে ব্যবহার করে আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্তে (Afghanistan-Pakistan border) থাকা পাশতুন এলাকাকে সন্ত্রাসবাদীদের মুক্তাঞ্চলে পরিণত করেছে। সেই সঙ্গে পাকিস্তানের শাহবাজ শরিফের সরকারের বিরুদ্ধে টিটিপি(TTP)-কে আল কায়েদার বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা সন্ত্রাসবাদী নেটওয়ার্ক ও তাদের জঙ্গিদের ব্যবহার করতে দেওয়া হচ্ছে।

টিটিপি ছাড়াও বালোচিস্তান লিবারেশন আর্মি (Balochistan Liberation Army) ও ইসলামিক স্টেট-খোরসান গ্রুপ (IS-K) *Islamic State-Khorasan group) পাকিস্তানে ধারাবাহিকভাবে হামলা চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছে বলেও জানা গেছে।