Brazilian President Jair Bolsonaro: করোনা ছুঁলেই মরবে, সাংবাদিকদের ‘লম্পট’ বললেন জাইর বলসোনারো
ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো (Photo Credits: Getty Images)

ব্রাসিলিয়া, ২৫ আগস্ট: আর্থিক তছরূপের অভিযোগ রয়েছে ফার্স্ট লেডি মিশেল বলসোনারোর বিরুদ্ধে। তানিয়ে প্রশ্ন করতেই সাংবাদিককে ঘুষি মারার হুমকি দেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো (Jair Bolsonaro)। এর ঠিক একদিন পরেই ফের সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে তোপ দাগলেন জাইর বলসোনারো। এবার সাংবাদিকদের লম্পট বললেন তিনি। তাঁর মতে সাংবাদিকরা দেশজুড়ে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে। এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো। সেখানেই তিনি বলেন, “কোভিড রুতে নিরন্তর যুদ্ধ করে চলেছে ব্রাজিল। আর সাংবাদিকদের লাম্পট্য চলছে। নতুন করোনাভাইরাস তাদের জন্যই বিপদ ডেকে আনবে।” নিজের সংক্রমণ প্রসঙ্গে মনে করিয়ে দিয়ে অতীতের কৃতিত্বকে বাহবা দিয়েছেন বল সোনারো। যেহেতু একজন ভূতপূর্ব অ্যাথলেট তারজন্য করোনাকে রুখে দিতে পেরেছেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন জাইর বলসোনারো। তিনি বলেন, “এক সময় সেনাবাহিনীতে দেশের নিরাপত্তা রক্ষার্থে লড়াই করেছেন। তিনি সেনার ক্যাপ্টেন পদে ছিলেন। সেকারণেই করোনাকে পরাস্ত করতে তাঁর কোনওরকম অসুবিধা হয়নি। তবে সাংবাদিকদের মতো চর্বিওয়ালা লোকেরা একবার করোনা আক্রান্ত হলে আর রক্ষা নেই, মৃত্যু নিশ্চিত। তোমরা করোনা থেকে বাঁচতে জানো না, শুধু বিদ্বেষ ছড়াতে পারো।” এদিকে রবিবারই ব্রাসিলিয়ার এক গির্জায় প্রার্থনা করতে গিয়েছিলেন বোলসোনারো। সেখান থেকে বেরোতেই তাঁকে ঘিরে ধরেন সাংবাদিকেরা। করোনা সংক্রমণের নিরিখে এই মুহূর্তে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে ব্রাজিল। এই অতিমারি আবহে দেশের পরিস্থিতি নিয়েই প্রশ্নোত্তর পর্ব চলছিল। তাল কাটল ‘ও গ্লোবো’ নামের এক সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধির প্রশ্নে। আরও পড়ুন-COVID-19 Cases In India: ১ দিনে সংক্রামিত ৬০, ৯৭৫ জন, ভারতে করোনা রোগীর সংখ্যা এখন ৩১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৩২৪

জানা গিয়েছে, ফার্স্ট লেডি মিশেল বোলসোনারো ও তাঁর দুই সহকারীর বিরুদ্ধে এই মুহূর্তে অর্থ তছরুপের মামলা চলছে। অভিযোগ, কয়েক বছর ধরে সরকারি প্রকল্পের নামে বেশ কয়েক জন সরকারি আধিকারিকের থেকে বিপুল অঙ্কের অর্থ হাতিয়েছেন ফার্স্ট লেডি। তা নিয়ে ওই সাংবাদিক প্রশ্ন করতেই বোলসানোরো দুম করে বলে বসেন, ‘‘আমার ইচ্ছে করছে এক ঘুষিতে আপনার মুখ ফাটিয়ে দিতে।’’ এখানেই শেষ নয়, গত কাল এ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত বাকি সাংবাদিকদের বিক্ষোভকে কার্যত পাত্তা না-দিয়েই নিজের গাড়িতে উঠে পড়লেন বোলসোনারো। এরপর ফের সোমবারও সাংবাদিকদের কটাক্ষ করে আক্রমণ শানালেন বলসোনার এর থেকে বেশ বোঝা যাচ্ছে রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে আছেন প্রেসিডেন্ট।