Kolkata: 'তোমার ধর্ষণ হবে', বিধানসভায় সিপিএম বিধায়ক জাহানারা খানকে বললেন তৃণমূল বিধায়ক নার্গিস বেগম
রাজ্য বিধানসভা ও তৃণমূল বিধায়ক নার্গিস বেগম (Photo:twitter/ANI)

কলকাতা, ১৫ ফেব্রুয়ারি: আবারও নজিরবিহীন ঘটনার সাক্ষী থাকল রাজ্য বিধানসভা। অধিবেশন চলাকালীন মহিলা বাম বিধায়ককে কুকথা বললেন তৃণমূলের মহিলা বিধায়ক। কুকথা শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন বাম বিধায়ক। স্পিকারকে এ নিয়ে নালিশও জানান তিনি। পরে বিধানসভার অধ্যক্ষের নির্দেশে অধিবেশনে উঠে দাঁড়িয়ে বাম বিধায়কের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চান তৃণমূল বিধায়ক। দলের বিধায়কের মন্তব্যে নিন্দায় সরব হন তৃণমূল বিধায়করাও। রাজ্যপালের ভাষণের ধন্যবাদজ্ঞাপন বিতর্কে অংশ নিয়ে বক্তব্য রাখছিলেন তৃণমূলের মেমারির বিধায়ক নার্গিস বেগম (Nargis Begum)। তৃণমূল বিধায়কের বক্তব্যের সময় বাম বিধায়করাও মন্তব্য করতে থাকেন। এর মাঝেই তৃণমূলের অসীমা পাত্র (Asima Patra) বলে ওঠেন, এরা সব গালিগালাজ করছে...। বাধা দিয়ে শাসক দলের উপর একের পর এক তোপ দাগা শুরু করে দেন জামুরিয়ার সিপিএম বিধায়ক জাহানারা খান (Jahanara khan)। জাহানারাও বলতে থাকেন, যাদের যেমন সংস্কৃতি, তাদের তেমন ভাষা। বিধানসভায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে শাসক-বিরোধী দু’পক্ষ বাকবিতণ্ডতায়। সে সময় কার্যত থামিয়েই পাল্টা নার্গিসের উদ্দেশ্যে জাহানারা বলেন, “তোমার ধর্ষণ হবে।”

সেই সময় সভা চালা্ছিলেন ডেপুটি স্পিকার সুকুমার হাঁসদা। তৃণমূল বিধায়কের বক্তব্য শেষ হওয়ার পরই স্পিকার বিমান ব্যানার্জির ঘরে যান জাহানারা-সহ বাম ও কংগ্রেস বিধায়করা। সেখানেই কান্নায় ভেঙে পড়েন জাহানারা। যেভাবে তাঁকে কুমন্তব্য করা হয়েছে, সেজন্য বিচার চান তিনি। নার্গিসের বক্তব্যের সময় বিধানসভায় ছিলেন ফিরহাদ হাকিম, তাপস রায়, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়রা। তাঁরাও নার্গিসের মন্তব্যে যথেষ্ট বিরক্তি প্রকাশ করেন। এরপরই অধিবেশন কক্ষে এসে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, যে শব্দ প্রয়োগ করা হয়েছে, তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। আমরা এর বিহিত চাই। পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও বলেন, যে মন্তব্য করা হয়েছে, তা বিধানসভার গরিমা খর্ব করেছে। আমরা এই মন্তব্যকে কখনই সমর্থন করি না। আরও পড়ুন: Dilip Ghosh: পার্ক সার্কাসে অশিক্ষিত মানুষকে রাস্তায় বসিয়ে বিদেশের টাকায় বিরিয়ানি খাওয়ানো হচ্ছে: দিলীপ ঘোষ

এরপরই স্পিকারের নির্দেশে বিধানসভার অধিবশনে উঠে দাঁড়িয়ে জাহানারর কাছে নিঃশর্তে হাতজোড় করে ক্ষমা চান তৃণমূল বিধায়ক নার্গিস। তিনি বলেন, ""আমার একটি শব্দ প্রয়োগের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চাইছি। এটা স্লিপ অব টাং ছিল।" নার্গিসের এই শব্দ বিধানসভার কার্যবিবরণী থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।