Sandeshkhali: সন্দেশখালিকাণ্ডে প্রথম গ্রেফতার, পুলিশের জালে ধরা পড়ল ২ অভিযুক্ত
ED Officers Attacked During Raid on Trinamool leader’s House (Photo Credit: ANI)

রেশন দুর্নীতি মামলায় তৃণমূল নেতা শাহজাহান শেখের বাড়িতে তল্লাশি অভিযানে যাওয়ার পথেই স্থানীয় বাসিন্দাদের আক্রমণের মুখে পড়েন ইডি আধিকারিক এবং সিআরপি জওয়ানেরা। চোট পান এক তদন্তকারী অফিসার এবং দুই জওয়ান। সন্দেশখালিকাণ্ডের ৭ দিনের মাথায় পুলিশ গ্রেফতার করল ২ জনকে। পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার ভোরবেলা বসিরহাট জেলা পুলিশের একটি দল ওই দুই অভিযুক্তক্র গ্রেফতার করেছে। অভিযুক্তদের নাম মেহবুর মোল্লা ও সুকলম সরকার। তদন্তকারী দলের ওপর হামলার পর তাঁরা দুজনই গ্রাম ছেড়ে গোপন জায়গায় আশ্রয় নেয়। হামলার দিনের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পুলিশ শনাক্ত করেছে দুই অভিযুক্তকে।

রেশন দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী তথা বর্তমান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তাঁর সূত্র ধরেই মামলায় সন্দেশখালির দাপুটে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহানের নাম উঠে আসে। হাসপাতালে জেলবন্দী বাবার (জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক) সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন মেয়ে প্রিয়দর্শিনী। দেখা করে হাসপাতালের কেবিন থেকে বেরনোর সময়ে বাবা তাঁকে একটি চিরকুট ধরায়। সেই চিরকুট মারফত বালুর উদ্দেশ্যসাধন হয়নি ঠিকই কিন্তু রেশন দুর্নীতির তদন্তে কিছুটা অগ্রগতি এসেছে। হাসপাতালের কেবিনের বাইরে প্রিয়দর্শিনীকে তল্লাশি করে ওই চিরকুট উদ্ধার করে সিআরপিএফ। সেই চিরকুটেই ছিল শাহজাহান শেখেরর নাম।

সন্দেশখালিকাণ্ডকে কেন্দ্র করে রাজ্যকে নতুন করে কাঠগড়ায় তুলেছে কেন্দ্র। বঙ্গে ভেঙে পড়েছে আইনশৃঙ্খলা, শাহজাহান শেখকে গ্রেফতারিতেও পুলিশের গাফিলতি প্রমুখ নানা অভিযোগ উঠছে। যদিও এই ঘটনাকে  বিজেপির 'প্ররোচনার' ফল হিসাবে ব্যাখা দিচ্ছে তৃণমূল। নির্বাচনের আগে বেছে বেছে কেবল তৃণমূল নেতা, মন্ত্রী, বিধায়ককের বাড়িতে তদন্তকারী অফিসারেরা কেন হানা দিচ্ছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছে শাসক দল। উল্লেখ্য, ইডি-র উপর হামলার ৭ দিন পেরিয়ে গিয়েছে, এখনও অধরা শাহজাহান শেখ। তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে লুক  আউট নোটিস জারি করেছে ইডি।