Anubrata Mondal: রোগভোগের পর প্রয়াত অনুব্রত মণ্ডলের স্ত্রী, ক্যানসারে ভুগছিলেন ছবিদেবী
অনুব্রত মণ্ডল(Photo Credit: Facebook)

কলকাতা, ২৪ জানুয়ারি: দীর্ঘ রোগভোগের পর প্রয়াত বীরভূমের তৃণমূলের জেলাসভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের স্ত্রী ছবিরানি মণ্ডল। দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন তিনি। স্ত্রীর দ্রুত আরোগ্য কামনায় ডাক্তার বদ্যি কোনওদিকেই কম করেননি। তিনি প্রথমবার রোগ ধরা পড়তেই ছবিদেবীর সুস্থতা নিয়ে সংশয়ে ছিলেন চিকিৎসকরা। তবে হাল ছাড়ার মানুষ নন অনুব্রত মণ্ডল। তাইতো ভোর থাকতে শিবের মাথায় ১০৮টি বেলপাতা ছুঁইয়ে তাই নিয়েই পড়িমরি করে ছুটেছিলেন হাসপাতালের। রাজারহাটে টাটার ক্যানসার রিসার্চ সেন্টার সেখানেই ভর্তি ছিলেন ছবিদেবী। সেই বেলপাতা স্ত্রী মাথায় ছোঁয়ানোর পর অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mondal) বলেছিলেন, মহাদেব সুস্থ করে দেবে। এরপর কাশীর বিশ্বনাথ মন্দির থেকেও সন্ন্যাসীরা কলকাতায় এসেছেন ছবিদেবীর সুস্থতা কামনায়।

কোনও কিছুতেই শেষরক্ষা হল না, ২৪ জানুয়ারি সকল ছটা নাগাদ হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন ছবিরানি মণ্ডল। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। রেখে গেলেন স্বামী অনুব্রত মণ্ডল ও একমাত্র মেয়েকে। বহুদিন ধরেই ক্যানসারে ভুগছিলেন ছবিদেবী। গত লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকে সবাই তাঁর স্ত্রীর অসুস্থতার খবর জেনে যায়। যেখানে প্রচারে গিয়েছেন সেখানে তাঁর স্ত্রীর সুস্থতা কামনায় মানুষের আশীর্বাদ চেয়েছেন। বার বার বলেছেন, মেয়েরা সংসারের জন্য কীভাবে নিজেদের জীবন ক্ষয় করে দেয়। যখন সিপিএম রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে তখন তৃণমূলের কর্মীদের উপরে অত্যাচার লেগেই থাকত। কোন কর্মীর বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। সিপিএম নেতাদের ভয়ে রাস্তায় বেরতে পারছে না দলীয় কর্মীরা। সেসব ঝামেলা সামলে রাত ভোর করে বাড়ি ফিরতেন তৃণমূলের এই দাপুটে নেতা। আর আতঙ্কে কাঁটা হয়ে পথের দিকে চেয়ে বিনিদ্র প্রহর কাটাতেন ছবিদেবী। দিনের পর দিন না খেয়ে এতটা সময় থেকেই শরীরের বড় ক্ষতি হয়ে যায় তাঁর। মাঝে মাঝেই দলীয় কর্মীদের সামনে দুঃখ করতে দেখা গিয়েছে অনুব্রতবাবুকে, যে তাঁর জন্যই ছবিদেবীর এই অবস্থা। আরও পড়ুন-Anubrata Mondal: অনুব্রত মণ্ডলের মেয়েকে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করার হুমকি দিয়ে গ্রেফতার উত্তরবঙ্গের দুই তরুণ

স্ত্রীকে বাঁচাতে বৈষ্ণোদেবীতেও পুজোর ব্যবস্থা করেছেন। পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দিরেও হয়েছে পুজো, যজ্ঞ, বীরভূমের পাঁচ সতীপীঠেও পুজো, যজ্ঞের আয়োজন করেছেন। দরিদ্র ভোজন থেকে সত্যনারায়ণের পুজো কিছুই বাদ যায়নি। সবকিছুর পরেও ভাগ্যের কাছে হার মানতে হল অনুব্রতবাবুকে। গোটা ঘটবায় বীরভূমে শোকের ছায়া