Ration Distribution Scam: জ্যোতিপ্রিয়র স্ত্রীর ব্যাঙ্কে এক বছরে ৬ কোটি টাকা জমা হয়েছে, কোথা থেকে এল এত টাকা? প্রশ্ন অগ্নিমিত্রার
Agnimitra Paul, Jyotipriya Mallick (Photo Credits: ANI)

রেশন বণ্টন দুর্নীতি মামলায় (Ration Distribution Scam) ইডির হাতে গ্রেফতার হয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী এবং বর্তমান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক (Jyotipriya Mallick)। আজ শুক্রবার সকালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ইডির দফতর সিজিও কমপ্লেক্স থেকে বের করা হয় বালুকে (জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ডাক নাম)। সাংবাদিকদের সামনে নিজেকে 'নির্দোষ' বলে জাহির করেন মন্ত্রী। ইডি হেফাজতে থাকা মন্ত্রীকে এদিন বলতে শোনা গিয়েছে, 'আমি চক্রান্তের শিকার। বিজেপি আমায় ফাঁসাচ্ছে'। মন্ত্রীকে ফাঁসানো হচ্ছে এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে বিজেপি সাংসদ অগ্নিমিত্রা পাল (Agnimitra Paul) পূর্বের সম্পত্তির পরিসংখ্যান তুলে এদিন বলেন, '২০১৬ সালে জ্যোতিপ্রিয়বাবুর স্ত্রীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ৪৫ হাজার টাকার ছিল। ২০১৭ সাল, এক বছরের মধ্যে ৬ কোটি টাকা অ্যাকাউন্টে জমা হয়। এক বছরের মধ্যে কী এমন ব্যবসা করলেন তাঁরা যে ৪৫ হাজার টাকা সোজা ৬ কোটি হয়ে গেল'।

এদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম করে বালুকে (Jyotipriya Mallick) বলতে শোনা গিয়েছে, 'মমতাদি-অভিষেক সব জানে। আমি দলের সঙ্গে ছিলাম আছি থাকব'। সেই প্রসঙ্গ তুলে তৃণমূলকে খোঁচা দিয়ে বঙ্গ বিজেপির সাধারণ সম্পাদক (Agnimitra Paul) মন্তব্য করেন, 'জ্যোতিপ্রিয় যা বলছেন আমরাও তাই বলছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সব কিছু জানেন। তাই জ্যোতিপ্রিয়কে জিজ্ঞাসাবাদের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করা দরকার'।

শুনুন কী বললেন অগ্নিমিত্রা পাল... 

রেশন বণ্টন দুর্নীতির তদন্তে নেমে রাজ্যে ১ কোটি ৮৫ লক্ষ ভুয়ো রেশন কার্ডের সন্ধান মিলেছে। রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার সংযুক্তিকরণের পর থেকেই ধীরে ধীরে ভুয়ো রেশন কার্ডের পর্দা ফাঁস হতে থাকে। সেই ভুয়ো রেশন কার্ডের প্রসঙ্গ টেনে অগ্নিমিত্রা (Agnimitra Paul) শাসক দলের প্রতি ক্ষোভ উগড়ে বলেন, 'বাংলার মানুষজনকে বোকা বানানো বন্ধ করুন আপনারা। ভুয়ো রেশন কার্ডের বিনিময়ে আপনারা রেশন তুলে খোলা বাজারে তা বিক্রি করে কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সমস্ত কিছুর বিষয়ে অবগত'।