Post-Mortem Report of Debendra Nath Ray: হেমতাবাদের মৃত বিজেপি বিধায়কের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট প্রকাশ, আত্মহত্যা বলেই জানালেন বিশেষজ্ঞরা
হেমতাবাদের মৃত বিজেপি বিধায়কের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট (Picture Source: ABP Ananda)

হেমতাবাদ, ১৪ জুলাই: প্রকাশ্যে এল হেমতাবাদের মৃত বিজেপি বিধায়ক (BJP MLA) দেবেন্দ্রনাথ রায়ের (Debendra Nath Ray)ময়নাতদন্তের রিপোর্ট (Post-Mortem Report)। রিপোর্ট অনুযায়ী, গলায় ফাঁসের দাগ একটানা নয়। যা দেখে ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা জানান, খুন নয়, সম্ভবত তিনি আত্মহত্যাই করেছেন। রিপোর্টে বলা হয়েছে, গলার ফাঁসের কারণেই মারা গেছেন বিজেপি নেতা। ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞদের মতে, কাউকে জোর করে মারা হলে, দাগ একটানা থাকত। কিন্তু একটানা নয় এমন দাগ আত্মহত্যার (Suicide) ইঙ্গিত দেয়।

বিশেষজ্ঞরা আরও জানান, মৃত্যুর পর ঝোলানো হয়নি, গলায় ফাঁসের কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্টে বলা হয়েছে, বিধায়কের দেহে অন্য কোনও আঘাতের চিহ্ন নেই। জোর করে ফাঁস দেওয়া হলে, অন্য আঘাতের চিহ্ন থাকত। বিরোধীরা সিবিআই তদন্ত চাইলেও তা উড়িয়ে দিয়ে সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। পুলিশও দাবি করেছে, মৃত বিধায়কের পকেট থেকে সুইসাইড নোট পাওয়া গিয়েছে, তাতে উল্লেখ রয়েছে দু'টি নাম। আরও পড়ুন, বিধায়কের মৃত্যুতে ডাকা উত্তরবঙ্গ বনধ সফল করতে পথে বিজেপির কর্মী সমর্থকরা, রায়গঞ্জে উত্তেজনা

এদিকে আজ দেবেন্দ্রনাথের মৃত্যুর প্রতিবাদে সিবিআই তদন্ত দাবি করেছে বিজেপি। সেই দাবিতেই মঙ্গলবার সমগ্র উত্তরবঙ্গে ডাকা হয়েছে ১২ ঘণ্টার বনধ। বনধ সফল করতে সকাল থেকেই পথে নেমে পড়েছে বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। উত্তর দিনাজপুর জুড়ে বনধের ছবি সকলের নজরে পড়েছে। রায়গঞ্জ ব্লকে বনধের চেহারা সর্বাত্মক। পাশাপাশি চোপড়া, ইসলামপুর-সহ গোটাজেলার দোকানপাট বন্ধ, রাস্তায় নামেনি বাস। ২০১৬-র ভোটে সিপিএমের টিকিটে হেমতাবাদ থেকে জিতেছিলেন দেবেন্দ্রনাথ রায়। গত বছর তিনি যোগ দেন গেরুয়া শিবিরে।