Taratala Rape: বিয়েবাড়ির বেঁচে যাওয়া খাবার আনতে গিয়ে 'ধর্ষিতা' নাবালিকা, অভিযুক্ত গ্রেফতার
প্রতীকী ছবি (Photo Credits: File Image)

কলকাতা, ৭ ডিসেম্বর: তারাতলার (Taratala) ফুটপাতেই (Footpath) থাকত মেয়েটি (Girl)। ঠিক করে খাওয়াটুকুও জুটতো না। আশেপাশে বিয়েবাড়ি থেকে উচ্ছিষ্ট খাওয়ার নিয়ে আসতো সে। ওই খেয়েই থাকত। সেরকমই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তারাতলা রোডে একটি বিয়ে বাড়িতে খাওয়ার সংগ্রহ করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হল ওই নাবালিকা।

আনন্দবাজার পত্রিকার খবর অনুযায়ী, পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের নাম শেখ দানিশ (Sheikh Danish)। ওই তরুণের বয়স ১৯ বছর। পশ্চিমবন্দর থানা এলাকার আলগরা বস্তির বাসিন্দা। সে দিন ওই নাবালিকাকে তারাতলা রোডের এক বিয়েবাড়িতে (Marriage Hall) গিয়েছিল উচ্ছিষ্ট খাবারের খোঁজে। অভিযোগ, ওই বিয়েবাড়ি লাগোয়া একটি দোতলা বাড়ির বাথরুমে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে দানিশ। ইতিমধ্যেই পশ্চিম বন্দর থানার (Paschim Bandar Police Station) পুলিশ তাকে গ্রেফতার (Arrests) করেছে। আরও পড়ুন, উন্নাও-এর নির্যাতিতার মৃত্যুতে টুইটারে সরব মমতা ব্যানার্জি

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খাওয়ারের লোভ দেখিয়ে সেই বাড়িতে নিয়ে যায় দানিশ। ঘটনাটি গোটার পর অসুস্থ হয়ে পড়ে ওই তরুণী। ওই অবস্থাতেই ফিরে এসে পরিবারকে সবকিছু জানায় ওই মেয়েটি। সবটা শুনে মেয়েটির মা গার্ডেনরীচ থানায় (Garden Reach Police Station) গিয়ে অভিযোগ দায়ের করে। সেখান থেকে মামলাটি চলে যায় পশ্চিম বন্দর থানায়। ঘটনার তদন্ত নেমে শুক্রবার দানিশকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ (ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারা) ছাড়াও ৪ পকসো (প্রোটেকশন ফ্রম চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস) POCSO আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।