Mamata Banerjee On NRC: 'পশ্চিমবঙ্গে NRC হবে না', অমিত শাহর ভাষণের পর আবারও জানিয়ে দিলেন মমতা ব্যানার্জি
মমতা ব্যানার্জি ও অমিত শাহ (Photo Credits: PTI)

কলকাতা, ২০ নভেম্বর: সারা দেশে NRC করা হবে বলে আজ রাজ্যসভায় জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাষণের খানিক পরই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee) জানিয়ে দিলেন, এ রাজ্যে এই NRC কার্যকর করা হবে না। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় একথা বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। মমতা ব্যানার্জি বলেন, NRC এনআরসি বাংলার মানুষকে সাম্প্রদায়িক ধারায় বিভক্ত করার লক্ষ্যে। রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় থাকাকালীন NRC বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হবে। আজ সকালে সংসদে ভাষণ দেওয়ার সময় অমিত শাহ বলেন, ভারতের সমস্ত রাজ্যে এনআরসি কার্যকর করা হবে। তিনি বলেন, এই অভিযানের উদ্দেশ্য কোনও ধর্মীয় সম্প্রদায়কে টার্গেট করা নয়, কেবল ভারতের আইনি নাগরিকদের চিহ্নিত করা

তিনি জানান, প্রতিবেশী বাংলাদেশ, পাকিস্তান থেকে চলে আসা সেদেশের সংখ্যালঘুরা এখানে শরণার্থীর মর্যাদা পাবেন। এই বক্তব্য থেকে স্পষ্ট যে, সেদেশ থেকে আসা মুসলিমরা এখানে অনুপ্রবেশকারী হিসবেই বিবেচিত হবেন। অসমে নাগরিক পঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা থেকে ইতিমধ্যেই ১৯ লক্ষের বেশি মানুষের নাম বাদ গিয়েছে। কিন্তু ফরেনার্স ট্রাইবুনালে তাঁরা আবেদন করতে পারেন বলে এ দিনও জানান অমিত শাহ। বলেন, ‘‘তালিকায় নাম বাদ গেলে ফরেনার্স ট্রাইবুনালে যাওয়ার অধিকার রয়েছে প্রত্যেকের। অসমের বিভিন্ন প্রান্তে এই ট্রাইবুনাল গড়ে তোলা হবে। কারও সামর্থ্য না থাকলে, অসম সরকার তাঁর আইনজীবীর খরচ বহন করবে।’’ আরও পড়ুন: NRC Will Be Implemented Across Country: দেশজুড়ে এনআরসি হবে, ধর্মের ভিত্তিতে কারও নাম তালিকা থেকে বাদ যাবে না: অমিত শাহ

২০১৬ সালে লোকসভায় নাগরিক সংশোধনী বিল পেশ করে প্রথম মোদি সরকার। পরে সেটি সংসদীয় যৌথ কমিটির কাছে পাঠানো হয়। এ বছর জানুয়ারি মাসে তা নিয়ে রিপোর্ট জমা দেয় ওই কমিটি। তার পর সেটি লোকসভায় গৃহীত হয় এবং গত ৮ জানুয়ারি পাশ হয়ে যায়। কিন্তু রাজ্যসভায় এখনও পাশ হয়নি বিলটি। এদিকে রাজ্যসভায় কিন্তু হিন্দু, খ্রিস্টান-সহ বাকিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বললেও, অমিত শাহ কেন মুসলিমদের এড়িয়ে গেলেন, তা জানতে চান এনসিপি সাংসদ সৈয়দ নাসির হুসেন। জবাবে অমিত শাহ বলেন, ‘‘আপনি এনআরসি এবং নাগরিক সংশোধনী বিলের মধ্যে গুলিয়ে ফেলছেন। এনআরসি তৈরির ক্ষেত্রে কোনও ধর্মকে নিশানা করা হয়নি। সুপ্রিম কোর্টের তদারকিতেই সব কিছু হয়েছে। ধর্মীয় বিশ্বাস যাই হোক না কেন, দেশের সব নাগরিকেরই নাম নথিভুক্ত হবে এনআরসি তালিকায়। দেশের সর্বত্র এনআরসি হবে। তবে এ নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনও কারণ নেই। সকলকে এনআরসি-র আওতায় আনতেই এই প্রক্রিয়া।"