Malda Woman Death: রাস্তা খারাপ, মেলেনি অ্যাম্বুলেন্স, মালদায় গৃহবধূর মৃত্যুতে বিতর্কিত মন্তব্য মন্ত্রীর
Malda Woman Death (Photo Credits: X)

মালদা, ১৮ নভেম্বরঃ রাস্তার বেহাল দশা। মুখ ফিরিয়েছে অ্যাম্বুলেন্স। শেষমেশ খাটিয়ায় চাপিয়ে রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার এক করুণ দৃশ্যের সাক্ষী থাকল মালদা (Malda)। বাধা বিপত্তি পেরিয়ে হাসপাতাল নিয়ে গেলেও প্রাণে বাঁচানো গেল না মামনি রায়কে। বৃহস্পতিবার গোবিন্দপুর-মহেশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মালডাঙা গ্রাম নিবাসী বছর ২৪ এর ওই মহিলাকে ১০ কিলোমিটার দূরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে জানিয়ে দেন। ঘটনার পর থেকে তুলকালাম কাণ্ড। বিক্ষোভ দেখিয়ে সড়ক অবরোধে বসেছে স্থানীয়রা। জেলা প্রশাসন মহলেও এই ঘটনা শোরগোল সৃষ্টি করেছে।

আরও পড়ুনঃ অনলাইন গেমের নেশায় বুঁদ, বাবা ফোন কেড়ে নিতেই গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে পড়ল ছেলে

জানা গিয়েছে, কয়েকদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিলেন মামনি। বৃহস্পতিবার বাড়াবাড়ি হওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় পরিবার। সেই মত খোঁজ শুরু হয় অ্যাম্বুলেন্সের। কিন্তু সেখানকার রাস্তা এতই খারাপ ছিল যে কোন অ্যাম্বুলেন্স আসতে রাজি হয়নি। শেষমেশ আর কোন উপায় না পেয়ে খাটিয়ায় চাপিয়ে মামনিকে নিয়ে হাসপাতাল যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তাঁর পরিজন। হাসপাতাল পৌঁছলেও শেষরক্ষা করা যায়নি।

মালদায় গৃহবধূ মৃত্যুর ঘটনা রাজনৈতিক মহলে তুমুল শোরগোল তুলেছে। সেই বিতর্কের আগুনে ঘি দিয়েছে গ্রন্থাগার দপ্তরের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী। এই বিষয়ে তাঁর মন্তব্য, 'রাস্তার জন্যে নয়। ওর ভাগ্যে ছিল তাই মারা গিয়েছে'। মন্ত্রীর এমন ধারার মন্তব্যের চরম নিন্দা করেছে বিরোধীরা।

ঘটনায় বঙ্গের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার তুলোধোনা করেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar)। তৃণমূলকে নিশানা করে সুকান্ত এক্স হ্যান্ডেলে লিখেছেন, বাংলার মন্ত্রীরা ঘন ঘন চিকিৎসার জন্যে বিদেশে যাচ্ছেন। এদিকে ন্যূনতম স্বাস্থ্য পরিষেবার অভাবে বাংলার মানুষ তাদের প্রিয়জনকে হারাচ্। ছে