Lok Sabha Elections 2019 Results: এক্সিট পোলে পদ্ম ঝড়ের ইঙ্গিতের পর ফলপ্রকাশের দিন রাজ্যের এই ১৫টা কেন্দ্রের দিকে সবার নজর
পিএম নরেন্দ্র মোদী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। (Photo Credit: ANI/PTI)

কলকাতা, ২২মে: ১৯ মে, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ (Lok Sabha Elections 2019) শেষ হওয়ার পর দেশের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দেখানো হয় বুথফেরত সমীক্ষা (Exit Poll Result 2019)। আর দেশের প্রায় সমস্ত সংবাদমাধ্যমেই দেখা যায় রাজ্যে তৃণমূলকে চাপে রেখে দারুণ ফল করতে চলেছে বিজেপি (BJP)। প্রায় সব সমীক্ষাতেই দেখা যাচ্ছে বাংলা থেকে দু সংখ্যার (অন্তত দশজন) সাংসদ পেতে চলেছে বিজেপি। কিছু সমীক্ষাতে তো এমনও দেখানেো হয় কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস (TMC)-এর চেয়েও বেশি আসনে জিততে পারে। এর পরেই বাংলার দিকে চেয়ে গোটা দেশ। বাংলায় রেকর্ড সংখ্যাক সভা করেছেন নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)-অমিত শাহ (Amit Shah)। বিজেপি কার্যত সর্বশক্তি উজাড় করে বাংলায় প্রচার সারে। আর তারপরই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত বাংলায় এক্সিট পোলের ফলাফল। গত বেশ কয়েকবছর ধরে একপেশে রাজনীতি দেখে চলা বাংলায় আচমকাই এসে গিয়েছে একটা 'কী হয় কী হয়' ভাব।

বাংলায় সর্বভারতীয় সংস্থাগুলির দেওয়া বুথফেরত সমীক্ষাগুলি গড় করলে দেখা যাচ্ছে বাংলায় ১০-১৬টি আসন পেতে পারে বিজেপি। এক্সিট পোলে পদ্ম ঝড়ের ইঙ্গিতের পর ফলপ্রকাশের দিন রাজ্যের এই ১৫টা কেন্দ্রের দিকে সবার নজর। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক--

১) রায়গঞ্জ (Raiganj)

রায়গঞ্জে চতুর্মুখি লড়াই। গতবার এই আসনে খুব অল্প ব্যবধানে কংগ্রেসের দীপা দাশমুন্সিকে হারিয়ে জিতেছিলেন সিপিএমের মহম্মদ সেলিম। জোর জল্পনা এবার সেলিম হারছেন। বুথফেরত সমীক্ষা অনুযায়ী এই আসনে জিততে চলেছেন তৃণমূলের কানহাইয়ালাল আগরওয়াল। তবে খুব কঠিন লড়াই হবে। এই আসনে যে কেউ জিততে পারেন। ডার্ক হর্স বিজেপি।

২) ব্যারাকপুর (Barrackpore)

নির্বাচনের ঠিক আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়ে ব্যারাকপুরে প্রার্থী হয়েছিলেন অর্জুন সিং। ভোটের শুরুতে সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছিল অর্জুনকে সামান্য হলেও তৃণমূলের দীনেশ ত্রিবেদীর থেকে এগিয়ে। তবে প্রচার যত এগিয়েছে তৃণমূল ঘর গুছিয়েছে। এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে এবারও দীনেশ ত্রিবেদী জিততে চলেছেন। তবে লড়াই খুব কঠিন। দীনেশ কিছুটা এগিয়ে ঠিকই, কিন্তু ফলপ্রকাশের দিন নাটক অপেক্ষা করতে পারে।

৩) আসানসোল (Asansol)

গতবার লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি যে দুটি আসন জিতেছিল, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য জয়টা ছিল এই কেন্দ্রে বাবুল সুপ্রিয়-র। বাবুলকে হারাতে এবার তৃণমূল আদাজল খেয়ে নেমেছে। বাঁকুড়ার সাংসদ মুনমুন সেনকে আসানসোলে এনে বাবুলকে চাপে রাখার কাজ সেরেছে তৃণমূল। এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে আসানসোলে হারবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তবে লড়াই খুব কঠিন।

৪) উত্তর কলকাতা (Kolkata North)

খুব কঠিন লড়াই। এই উত্তর কলকাতা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের প্রচারে এসেই অমিত শাহের সভায় মহাঅশান্তি হয়েছিল। এখানে ভোটে মেরুকরণ দেখা যেতে চলেছে। বুথফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে উত্তর কলকাতায় ব্যবধান কমলেও জিততে চলেছেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে ভোটগণনা শেষ না হলে কিছু বলা কঠিন।

৫) আলিপুরদুয়ার (Alipurduar)

ভোটের আগে থেকে বারবার বলা হচ্ছে আলিপুরদুয়ারে এবার জিততে চলেছে বিজেপি। বুথফেরত সমীক্ষাতেও দেখা যাচ্ছে বিজেপি প্রার্থী জন বার্লা।

৬) মেদিনীপুর (Midnapore)

বুথফেরত সমীক্ষায় বড় চমক। এক সমীক্ষায় দেখানো হয় মেদিনীপুর কেন্দ্রে জিততে চলেছেন বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মানস ভুঁইয়ার মত দাপুটে নেতা কি হেরে যাবেন। সেটার জবাব জানা যাবে ২৩ মে, বৃহস্পতিবার।

৭) ঝাড়গ্রাম (Jhargram)

জঙ্গলমহলে দিদির ম্যাজিক ম্লান করে এবার নাকি বিজেপি জিতে যাবে। এমনই আভাস কিছু বুথফেরত সমীক্ষায়। সেটা হলে শুধু চমকপ্রদ হবে।

৮) পুরুলিয়া (Purulia)

পঞ্চায়েত নির্বাচনে পুরুলিয়ায় দারুণ ফল করেছিল বিজেপি। পুরুলিয়ায় গতবার দেড় লক্ষ ভোটে বাম প্রার্থীকে হারিয়েছিলেন তৃণমূল প্রার্থী মৃগাঙ্ক মাহাতো। বিজেপি গচবার মাত্র ৮৬ হাজার ভোট পয়ে চতুর্থ হয়েছিল। সেই বিজেপি নাকি এবার জিতে যাবে, এমনটাই বলা হয়েছে এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষায়। এখান থেকে সত্যি কি জিতে ইতিহাস গড়তে পারবেন বিজেপি প্রার্থী জ্যোর্তিময় সিং মাহাতো! জানা যাবে কাল, ২৩ মে।

৯) রানাঘাট (Ranaghat)

রানাঘাটে এবার তৃণমূলকে হারিয়ে দেবে বিজেপি। এমন একটা জল্পান দীর্ঘদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে। এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষাতেও তেমন দেখা যাচ্ছে। জানা যাবে কাল, ২৩ মে।

১০) হাওড়া (Howrah)

তৃণমূলের একেবারে সেফ সিট হাওড়া-য়া নিকে প্রসূণ ব্যানার্জিকে গোল দিয়ে সাংসদ হতে চলেছেন বিজেপি প্রার্থী রন্তিদেব সেনগুপ্ত। এমনটাই দেখা যাচ্ছে এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষায়। সত্যি কি তেমন হবে! তৃণমূলের গড়ে সত্যি কি ফুটবে পদ্মফুল! জানা যাবে ২৩ মে।

১১) বাঁকুড়া (Bankura)

বাঁকুড়ায় গতবার দারুণ জয় পেয়েছিলেন মুনমুন সেন। মুনমুনকে আসানসোলে পাঠিয়ে রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জিকে বাঁকুড়ায় পাঠিয়েছেন মমতা। এবিপি আনন্দ-এর বুথফেরত সমীক্ষায় বলা হয়েছে এই কেন্দ্রে দাপুটে নেতা সুব্রতকে হারিয়ে সাংসদ হতে চলেছেন বিজেপি প্রার্থী সুভাষ সরকার।  সত্যি কি তেমন হবে! জানা যাবে ২৩ মে।

১২) বর্ধমান পূর্ব (Burdwan East)

বর্ধমান-পূর্বে নাকি জিতবে বিজেপি। এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষায় বড় চমক। দেখা যাক কি হয়।

১৩) দমদম (Dumdum)

দমদমে ত্রিমুখি লড়াইয়ে জিততে চলেছেন তৃণমূল প্রার্থী সৌগত রায়। এবিপি আনন্দের বুথফেরত সমীক্ষায় এমনই দেখা যাচ্ছে। এবার অপেক্ষা ফলের।

১৪) যাদবপুর (Jadavpur)

তৃণমূল প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী জিততে চলেছেন। বুথফেরত সমীক্ষায় এমনই দেখা যাচ্ছে। সিপিএম এই আসনে জিততে অনেক চেষ্টা করেছে। বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা পিছিয়ে থেকে শুরু করে চমক দিতে পারবেন!

১৫) বসিরহাট (Basirhat)

নুসরত জাঁহান সাংসদ হচ্ছেন, তা বুথফেরত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে। এবার দেখা যাক ফল কি হয়।