Durga Puja 2023: মণ্ডপে চলছে সপ্তমীর পুজো, সকাল থেকে রাস্তায় জনতার ঢল, মহানগরে ঠাকুর দেখার উন্মাদনা তুঙ্গে
মহাসপ্তমী। (Photo Credits: Rita Chandra)

আজ, মহাসপ্তমী। পঞ্জিকা মেনে সব কিছু হলে আজ, শনিবার থেকেই বোধনের পর বাঙালির আসল দুর্গাপুজো শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু বাঙালীর পুজো তো কবে শুরু হয়ে গিয়েছে। তবু সপ্তমী তো সপ্তমীই। সপ্তমীতে তো প্রথম দেখা। তা সে বাঙালী যতই প্রথম দেখা মহালয়ার আগে শ্রীভূমিতে লাইন দিয়ে সেরে নিক। মহাসপ্তমীর পুজো চলছে সব মণ্ডপে। ভেসে আসছে পুজোর মন্ত্র। এর মধ্যে সকাল থেকেই সেজেগুজে মানুষ ঠাকুর দেখতে বেরিয়ে পড়েছে। এবার পুজোয় বেশীরভাগ মানুষই বাইকর, স্কুটারে করেই ঠাকুর দেখছে। বাইকে সুবিধা অনেক, পার্কিংয়ের ঝামেলা নেই, জ্যাম থেকে উদ্ধারের সুযোগ বেশী।

গত কয়েক বছরের করোনা আতঙ্ক এবার আর নেই। এবার তাই পুজো দেখার উন্মাদনাটা বেশ চোখে পড়ার মত। গতকাল, ষষ্ঠীর রাত ৩টে-য় বেহালা ১৪ নম্বরের সামনে হাজার হাজার মানুষের ভিড়। রাত আড়াইটের নিউটাউন সার্বজনীনের পুজোয় লম্বা লাইনে জনতার ঢল বেড়েই চলল। রাত দুটো- গড়িয়াহাটের মোড়ে তিল ধারনের জায়গা নেই। টালা থেকে টালিগঞ্জ, ধর্মতলা থেকে দমদম-যে দিকেই যাওয়া যাচ্ছে, শুধু ভিড় আর ভিড়।

কাল, শুক্রবার রাত ১২টা নাগাদ লেক গার্ডেন্সের মুদিয়ালি ক্লাবের সামনে কর্তব্যরত এক পুলিশ কর্মী জানালেন, "গত ২৭ বছর ধরে পুজোয় ডিউটি করছি, এত ভিড় দেখেনি। মানুষের স্পিরিট দেখে অবাক হচ্ছি।"এবার কলকাতার পুজো সত্যিই ভিড়ের আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিচ্ছে। অতীতের সমস্ত রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে এবারের ভিড়। আগেভাগে মণ্ডপগুলি দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়ার ফলে মহালয়া থেকেই পথে নেমেছেন মানুষ।

এতো গেল ষষ্ঠীর ভিড়ের কথা। আজ থেকে তো 'আসল পুজো'। গত দু তিন ধরেই পুজোয় জনজোয়ার জনসুনামিতে পরিণত হয়েছে। সপ্তমীর ভিড় তাহলে কোথায় যাবে! বেহালার এক পুজো কমিটির সদস্য হাসতে হাসতে বললেন, মানুষের ভিড়টাই তো সব। গত চার দিন ধরে পুজোর লাইনে দাঁড়িয়ে সুরচি সংঘ থেকে শ্রীভূমি, কলেজ স্কোয়ার থেকে টালা প্রত্যয়, বেহালা নতুন দল থেকে হরিদেবপুর ৪১ পল্লী-দেখে ফেলে দমদমের প্রিয়াঙ্কা বলছে, সপ্তমী থেকে তো আসল শুরু। লাইন দিয়ে ঠাকুর দেখার মজাটাই আলাদা।

কলকাতার পুজোর মাহাত্ম্য এখানেই। ভিড় টলানো যায় না, লাইন দেখলে পালায় না। সারা বছরের কত কষ্ট ঠাকুর দেখেই তো মেটে

এবার যেখানে রেকর্ড ভিড় হচ্ছে:

দক্ষিণ কলকাতা: একডালিয়া এভারগ্রিন, দেশপ্রিয় পার্ক, ত্রিধারা সম্মেলনী, চেতলা অগ্রনী, হিন্দুস্থান পার্ক, নিউ আলিপুর সুরুচি সঙ্ঘ, বেহালা ক্লাব, বেহালা নতুন দল।

মধ্য কলকাতা: পার্ক সাকার্স ময়দান, কলেজ স্কোয়ার, সন্তোষ মিত্র স্কোয়ার, মহম্মদ আলি পার্ক,

উত্তর কলকাতা: বাগবাজার সার্বজনীন, কাশীবোস লেন হাতিবাগান, নবীন পল্লী, চালতা বাগান

দমদম- দমদম তরুণ সংঘ, দমদম পার্ক, দমদম ভারত চক্র।

বিশেষ আকর্ষণ- বাদামতলা আষাঢ় সংঘ, হাজরা ৬৪ পল্লী, লেকটাউনের শ্রীভূমি, নিউ টাউন সার্বজনীন, চোরবাগান (জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ির উল্টোদিক), টালা প্রত্য়য়, হরিদেবপুর অজেয় সংহতি।