ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম রেলওয়ে ওভার ব্রীজের উদ্বোধন হল আজ, কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের মাঝেই পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জির হাতে উদ্বোধন হল সেতুর
সুব্রত মুখার্জি (Photo Credits: Facebook)

পূর্ব বর্ধমান, ২৪ সেপ্টেম্বর: আজ মঙ্গলবার উদ্বোধন (Inauguration) হয়ে গেল ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম রেলওয়ে ওভার ব্রীজের (India's Second Largest Railway Over Bridge)। কেন্দ্রের (Centre) আপত্তি সত্ত্বেও পূর্ব বর্ধমানের (Purba Bardhaman) নতুন সেতু উদ্বোধন করল রাজ্য (West Bengal Government)। একই সেতুর (Bridge) উদ্বোধন করা হবে দুবার। বর্ধমান রেল স্টেশনের (Rail Station) উপরে নতুন রেল ব্রীজের উদ্বোধন ঘিরেই এখন চরম সংঘাত মাথাচারা দিয়েছে কেন্দ্র-রাজ্যের। ঝুলন্ত সেতুর গার্ডওয়ালে কয়েকটি পোস্টার (Poster) সাটিয়ে দেওয়া হয়। সেতুর ওপর দিয়ে ব্যারিকেড লাগিয়ে দেয় রেল কর্তৃপক্ষ।

জেলা প্রশাসনের তরফে উড়ালপুল উদ্বোধনের কথা ঘোষণা হতেই যেন আগুনে ঘি পড়ে। এদিন সকালেই বর্ধমান রেল স্টেশনের উপর নতুন রেল ব্রীজ উদ্বোধনের কথা রাজ্যের। উদ্বোধন করার কথা পঞ্চায়েত এবং গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জির (Subrata Mukherjee)। তার আগেই সকালে সেতুর গায়ে হুঁশিয়ারি পোস্টার পড়ে যায়। এমনকি সেতুর ওপর রেলের তরফে ব্যারিকেডও লাগিয়ে দেয় রেল কর্তৃপক্ষ। আর তাতেই স্নায়ুযুদ্ধ আরও তীব্র আকার ধারণ করে। পরিসংখ্যান বলছে, এই সেতু নির্মাণে রাজ্য সরকার খরচ করেছে ১৬২ কোটি টাকা। রেল (Rail) দিয়েছে প্রায় ১৩০ কোটি টাকা। আরও পড়ুন- Earthquake In Delhi: দিল্লি-পাঞ্জাব-কাশ্মীর সহ উত্তর ভারত জুড়ে ভূমিকম্প, রাজধানী শহর কেঁপে ওঠায় আতঙ্ক

জানা গিয়েছে, রেলের তরফে ব্যারিকেডের নোটিসে লেখা হয়, এই সেতুর উদ্বোধন হবে ৩০ সেপ্টেম্বর। অনুষ্ঠানে থাকবেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল (Railway Ministar Piyush Goel)। রাজ্য সরকারকেও এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালে অনুমোদন হলেও ২০১১ সাল পর্যন্ত জমিজটে আটকে ছিল সেতুর কাজ। ২০১১ সালে শুরু হয় সেতু নির্মাণের কাজ। বর্ধমান রেল স্টেশনের উপর যে পুরনো সেতুটি রয়েছে সেটির ভার বহন ক্ষমতা কমে আসার কারণেই নতুন এই সেতু নির্মাণ করা হয়। বছর দু'য়েক আগেই যার কাজ শেষ হয়। কিন্তু কেন্দ্র ও রাজ্যের টানাপোড়েনে থমকে ছিল সেতুর উদ্বোধন।