বিশ্বজুড়ে চাকরি হারানোর আশঙ্কায় দিন গুনছেন প্রযুক্তিকর্মীরা, সামনের কয়েক সপ্তাহ আরও খারাপ হওয়ার আশঙ্কা !
Representational Image (Photo Credits: Twitter)

গোটা বিশ্বের কর্মক্ষেত্রে কর্মী সংখ্যা কমানোর যে হিড়িক পড়েছে তাতে শঙ্কার ভাঁজ সকলের কপালে। ইতিমধ্যেই মেটা ব্যাপকভাবে ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা করছে বলে জানা গেছে। লিফট ( Lyft) প্রায় 700 কর্মী কেটেছে। ফিনটেক জায়ান্ট স্ট্রাইপ (Stripe) তার ১৪% কর্মী ছাঁটাই করেছে। এগুলি সবই গত সপ্তাহের পরিসংখ্যান,  শিল্প বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই প্রক্রিয়া সবে শুরু।

কোম্পানিগুলো যখনই আগামী বছরের জন্য পরিকল্পনা শুরু করছে তখনই নজরে আসছে প্রযুক্তিগত দুর্বলতার তত্ত্বগুলি তাছাড়া অর্থনৈতিক সংকটও হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই  কারিগরি সংস্থাগুলি কোমর বেঁধে নেমেছে ভবিষ্যত সুরক্ষিত রাখতে এবং  বেতনের খরচ কমাতে তাদের কর্মী ছাটাই শুরু হয়েছে। যার অর্থ হল বছরের আগামি দিনগুলিতে হাজার হাজার প্রযুক্তি কর্মীর চাকরি চলে যাওয়ার একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

কলম্বিয়া বিজনেস স্কুলের অধ্যাপক ড্যান ওয়াং বলেছেন ,বিগ টেক কোম্পানিগুলো  গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই তাদের  কম আয়ের কথা জানিয়ে যাচ্ছ, তারাও সামনের মাসগুলোতে কর্মী সম্পর্কে সতর্কতা সংকেত প্রকাশ করেছে। মন্দার আশংকাজনক হুমকির ফলে গ্রাহকদের খরচ কমাতে বাধ্য করছে। তার মানে আগামী সপ্তাহ ও মাসগুলোতে, সেই কোম্পানিগুলোও খরচ কমাতে চাইবে।

উদাহরণস্বরূপ বলা যায় অ্যামাজন( Amazon) মেটা( Meta) এবং গুগল (Google)-এর ২০২২ এর আর্থিক বছর শেষের দিকে বা ২০২৩ এর প্রথম দিকে শেষ হয়৷ তারা হয়তো এখন তাদের ব্যালেন্স শীট থেকে খরচ কমাতে চাইছে, তাই আর্থিক বছর শেষ হওয়ার আগেই  যদি একজন কর্মচারীকে এখন ছাঁটাই করা হয় এবং ছয় সপ্তাহের বিচ্ছেদ দেওয়া হয়, তাহলে এটি প্রথম ত্রৈমাসিকের জন্য খরচ কমিয়ে দেয়। এমনকি যদি কর্মীদের আরও দীর্ঘ বিচ্ছেদ দেওয়া হয়, তিন মাসের মতো, তাদের বেতন প্রথম ত্রৈমাসিক শেষ হওয়ার আগেই বই বন্ধ হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে ব্যালান্স শীটে তার প্রভাব পড়তে বাধ্য।

তাই আগামী কয়েক সপ্তাহ বা মাস চাকরী হারানোর আশঙ্কাতেই দিন কাটাতে হবে কর্মীদের।