KKR vs SRH, IPL 2024 Qualifier 1: ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে কাল কলকাতার সামনে হায়দরাবাদ, কে কোথায় এগিয়ে
KKR vs SRH

পার্থ প্রতিম চন্দ্র: IPL 2024: KKR vs SRH, Qulifier 1 Preview: আগামিকাল, মঙ্গলবার রাতে আইপিএলের ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি কলকাতা নাইট রাইডার্স ও সান রাইজার্স হায়দরাবাদ। লিগ পর্যায়ে প্রথম দুটি স্থানে থাকার সুবাদে কোয়ালিফায়ার ওয়ানের ম্যাচে খেলার সুযোগ পেয়েছে কলকাতা ও হায়দরাবাদ। তাই মঙ্গলবার আমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে এই দুটি দলের ম্যাচে যারা জিতবে তারা সরাসরি ফাইনালে উঠে যাবে। আর হেরে গেলেও সব শেষ হয়ে যাবে না। সেক্ষেত্রে শুক্রবার কোয়ালিফিয়ার টু-তে বেঙ্গালুরু অথবা রাজস্থানের বিরুদ্ধে খেলে ফাইনালে ওঠার সুযোগ থাকছে পরাজিত দলের।

তবে কোয়ালিফায়ার টু-নয়, মঙ্গলবার জিতে সরাসরি ফাইনালে খেলার লক্ষ্যে দুই দল। চলতি আইপিএলে নাইট রাইডার্স আর সান রাইজার্স হায়দরাবাদ চিত্তাকর্ষক ক্রিকেট খেলেছে। দুটি দলই দুশো প্লাস রান করাটা অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছে। দুটি দলেই একাধিক হার্ড হিটার ও ম্যাচ উইনার। দুটি দলেই এমন বেশ কিছু খেলায়োড় আছেন যারা একেবারে অবিশ্বাস্যভাবে একাই ম্যাচ বের করে আনার ক্ষমতা রাখেন।

শ্রেয়স আইয়ার বনাম প্যাট কামিন্স-এর দলের এই ফাইনালে ওঠার ম্যাচে কারা এগিয়ে।

চলুন এক নজরে বোঝার চেষ্টা করা যাক।

ব্যাটিংয়ে:

হায়দরাবাদ- ৫৫%, কলকাতা-৪৫%

হায়দরাবাদে আছেন ট্রাভিস হেড, অভিষেক শর্মা, হেনরিক ক্লাসেনের মত ব্যাটাররা। চলতি আইপিএলে হায়দরাবাদের ব্যাটিং বারবার পরমাণু বোমার সাইজে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। আইপিএলের ইতিহাসে এক ইনিংসে সর্বাধিক রানের ইনিংসটা এবার হায়দরাবাদই করেছে। ৩০০-র খুব কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল তারা। হায়দারাবাদের ব্যাটিংয়ের সবচেয়ে বড় প্লাস পয়েন্ট-পাওয়ার প্লে-র সুবিধা দারুণভাবে নিতে পারাটা। কলকাতার ব্যাটিংয়ে তেমন আছেন-সুনীন নারিন, আন্দ্র রাসেল, রমনদীপ সিং। শ্রেয়স আইয়ার, ভেঙ্কটেশ আইয়ার, নীতীশ রানা-রও মিডল অর্ডারে যে কোনও পরিস্থিতি সামলে দিতে পারেন। কেকেআর-এর ব্যাটিংয়ের শক্তি হল- চাপের মুখ ভেঙে না পড়ে যে কোনও জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়ানো। তবে ব্যাটিং শক্তির সামগ্রিক বিচারে সান রাইজার্সকে এগিয়ে রাখতে হচ্ছে।

বোলিং-

কলকাতা-৫২%, হায়দরাবাদ-৪৮%

হায়দারবাদের পেস বোলিংয়ে আছে তিন রত্ন-প্যাট কামিন্স, আর্শদীপ সিং ও হর্ষল প্যাটেল। কলকাতায় পেস বোলিং সেই হিসেবে কিছুটা দুর্বল। মিচেল স্টার্কের ধারাবাহিকতা নিয়ে প্রশ্ন আছে। হর্ষিত রানা-র অভিজ্ঞতার অভাব আছে। তবে স্পিন বোলিং বিভাগে কলকাতা অনেকটা এগিয়ে। সুনীল নারিন, বরুণ চক্রবর্তী-যে কোনও ম্যাচ নিজেদের জাদুতে ঘুরিয়ে দিতে পারেন। হায়দরাবাদ আছেন দুই স্পিনার-রাহুল চাহার ও হরপ্রীত ব্রার। কিন্তু নারিন-রা অনেকটা এগিয়ে। সামগ্রিকভাবে নাইট রাইডার্সকে এগিয়ে রাখতে হচ্ছে।

হার্ড হিটার

হায়দরাবাদ- ৫৬%, কলকাতা-৪৪%

কমলা জার্সিতে বিস্ফোরক হলেন হেড, অভিষেক, ক্লাসেন, নীতীশ রেড্ডি। সেখানে বেগুনি জার্সিতে বিস্ফোরক-নারিন, রাসেল, রমনদীপ। তবে এই বিভাগে এগিয়ে রাখতে হচ্ছে সান রাইজার্স-কে।

ম্যাচ উইনার (ব্যাট হাতে)

হায়দরাবাদ- ৫৪%, কলকাতা-৪৬%

হেড, অভিষেক প্রথম ৫-৬ ওভারে ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে যেতে পারেন।

ম্যাচ উইনার (বল হাতে)

কলকাতা-৫৩%, হায়দরাবাদ-৪৭%

নারিন, বরুণ চক্রবর্তী-র জন্য এগিয়ে কলকাতা।

দলগত সংহতি

কলকাতা- ৫৫%, হায়দরাবাদ-৪৫%

টিম বন্ডিং বা দলগত সংহতি-তে এগিয়ে কলকাতা। হায়দারবাদ এগিয়ে ব্যক্তিগত নৈপুন্যে।

তুরুপের তাস-

কলকাতা-সুনীল নারিন, আন্দ্রে রাসেল, বরুণ চক্রবর্তী।।

হায়দরাবাদ- ট্রাভিস হেড, অভিষেক শর্মা, প্যাট কামিন্স।।

চলতি আইপিএলে পারফরম্যান্স-

কলকাতা: ম্যাচ-১৪, জয়- ৯, ড্র-২, হার-৩

হায়দরাবাদ-ম্যাচ-১৪, জয়- ৮, ড্র-১, হার-৫

মুখোমুখি সাক্ষাত-

চলতি আইপিএলে দুটি দল একবারই মুখোমুখি হয়। ইডেনে আয়োজিত সেই ম্যাচে সান রাইজার্স হায়দরাবাদ-কে হারায় কলকাতা নাইট রাইডার্স। ইডেনে প্রথমে ব্যাট করে কলকাতা করেছিল ২০৮, জবাবে হায়দরাবাদ করেছিল ২০৪। সেই ম্যাচে ২৫ বলে ৬৩ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেছিলেন রাসেল।

সামগ্রিক বিচারে কে এগিয়ে

কলকাতা: ৫১ শতাংশ

হায়দরাবাদ: ৪৯ শতাংশ

তবে টি-২০-তে এত খাতায় কলমে হিসেব অনেক সময়ই মেলে না। এক বলে খেলা ঘুরে যায়।

সম্ভাব্য একাদশ-

কলকাতা:

সুনীল নারিন, রহমানউল্লাহ গুরবাজ (উইকেটকিপার), ভেঙ্কটেশ আইয়ার, শ্রেয়স আইয়ার (অধিনায়ক), নীতীশ রানা, আন্দ্রে রাসেল, রিঙ্কু সিং, রমনদীপ সিং, মিচেল স্টার্ক, হর্ষিত রানা, বরুণ চক্রবর্তী, সুয়েশ শর্মা (ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার)।

হায়দরাবাদ:

ট্রাভিস হেড, অভিষেক শর্মা, রাহুল ত্রিপাঠি, হেনরিক ক্লাসেন (উইকেটকিপার), নীতীশ রেড্ডি, আব্দুল সামাদ, শাহবাজ আহমেদ, প্যাট কামিন্স (অধিনায়ক), আর্শদীপ সিং, হর্ষল প্যাটেল, রাহুল চাহার, সনবীর সিং (ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার)।

দ্বৈরথে

ট্রাভিস হেড বনাম আন্দ্রে রাসেল।।

প্যাট কামিন্স বনাম মিচেল স্টার্ক।।

অভিষেক শর্মা বনাম সুনীল নারিন।।

শ্রেয়স আইয়ার বনাম রাহুল ত্রিপাঠি।।

নীতীশ রেড্ডি বনাম রমনদীপ সিং।।

রহমানউল্লাহ গুরবাজ বনাম হেনরিক ক্লাসেন।।

প্রাক্তন নাইটরা-

প্যাট কামিন্স ও রাহুল ত্রিপাঠি আগে নাইট জার্সিতে খেলতেন। এবার তাঁরা হায়দরাবাদের বড় শক্তি। দুই নাইটের সামনে পুরনো দলকে হারানোর সুযোগ।

মঙ্গলবার, সন্ধ্যা ৭.৩০টা থেকে আমেদাবাদ থেকে স্টার স্পোর্টস নেটওয়ার্কের বিভিন্ন চ্যানেলে ও ডিজনি+হটস্টারে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে এই খেলা।