Euro 2020: ড্যানিশ মিরাক্যাল চলছেই, ২৯ বছর বাদে ইউরোর সেমিতে ডেনমার্ক

বাকু, ৩ জুলাই: মাঠেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তারকা খেলোয়াড় ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের (Christian Eriksen) মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়া। গ্রুপের প্রথম দুটো ম্যাচ হেরে কার্যত বিদায় নেওয়া। এত অভিশপ্ত-খারাপ সময় থেকেই ড্যানিশ মিরাক্যাল শুরু। পুতিনের দেশে রাশিয়াকে চার গোলে হারিয়ে সেই মিরক্যালের পথে হাাঁটা। আজ বাকুতে চেক প্রজাতন্ত্রের বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জিতে সেমিফাইনালে উঠে গেল ডেনমার্ক (Denmark)। আরও পড়ুন: ওয়েম্বলিতে সেমিফাইনালে মুখোমুখি ইতালি-স্পেন, জানুন দুই দেশের শোধবোধের অবাক তথ্য

১৯৯২ সালে প্রথমবার ইউরো কাপ জয়ের পর এই প্রথম ডেনমার্ক খেলবে ইউরোর সেমিফাইনালে। গতবার ইউরোর মূলপর্বে যোগ্যতাই করতে পারেনি ডেনমার্ক। ২০১২ ইউরোয় গ্রুপ লিগ থেকেই বিদায় নেয়। অবশেষে সেই ড্যানিশ ডিনামাইট এসে ফাটল সতীর্থ ফুটবলার মৃত্যুমুখ থেকে ফিরে আসার মুহূর্তে।

এরিকসনের জন্য ফুটবল দুনিয়ার আবেগের নাম এখন ডেনমার্ক। সেই ডেনমার্ক ২৯ বছর বাদে ইউরোর সেমিফাইনালে খেলবে ইংল্যান্ড-ইউক্রেন কোয়ার্টার ফাইনালের জয়ী ম্যাচের বিরুদ্ধে।

প্রি কোয়ার্টার ফাইনালে ওয়েলশকে ৪-০ গোলে হারানোর পর আজ চেক প্রজাতন্ত্রের বিরুদ্ধে ঝড় তুলে ম্যাচের ৬ মিনিটের মধ্যেই এগিয়ে যায় ডেনমার্ক। ডেনমার্কের প্রথম গোলটি করেন ড্যানলি। এরপর ডেনমার্ক গোলের একাধিক সুযোগ পায়। ম্যাচের ৪২মিনিটে ডোলবার্গ ডেনমার্কের লিড দ্বিগুণ করেন। বিরতিতে ২-০ থাকা অবস্থায় ডেনমার্কের তখন খেলা দেখে মনেই হচ্ছিল, তারা যেন ৪৫ মিনিটেই ম্যাচ জিতে নিয়েছে। কারণ ডাচদের ২-০ গোলে হারিয়ে শেষ ষোলোয় ছিটকে দেওয়া চেক প্রজাতন্ত্র তখন খেই হারিয়েছে।  কিন্তু বিরতির পর চেক প্রজাতন্ত্র যেন অন্য দল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই স্কিচেকের দুরন্ত গোলে ম্যাচ জমিয়ে দেয় চেক। এরপর একের পর আক্রামণ করতে থাকে চেক দল। তবে শেষ অবধি চেকমেট করল ডেনমার্কই। ম্যাচ শুরুর আগে স্কট এরিকসনকে সম্মান জানান দলের সতীর্থ ফুটবলাররা। ড্যানিশদের এবার মিশন ওয়েম্বলি।