Laxmi Ratan Shukla Donates Salary For Relief fund: রাজ্য আপৎকালীন ত্রাণ তহবিলে ৩ মাসের বেতন দিলেন মন্ত্রী লক্ষ্মী রতন শুক্লা
একটি অনুষ্ঠানে লক্ষ্মী রতন শুক্লা (Photo Credits: Twitter|@Deepti_Sharma06)

কলকাতা, ২৭ মার্চ: করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ইতোমধ্যেই ২০০ কোটির প্যাকেজ ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। তবে যেভাবে করোনা পরিস্থিতির জেরে লকডাউন শুরু হয়েছে, তাতে ধাক্কা খাচ্ছে কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য। যা সার্বিকভাবেই প্রভাব ফেলছে অর্থনীতিতে। এমন অবস্থায় কেন্দ্রীয় সাহায্যের পাশাপাশি নাগরিকদেরও সাধ্যমতো অনুদান দেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee)। এজন্য তিনি রাজ্য আপৎকালীন ক্রাণ তহবিল গঠন করেছেন। পরিস্থিতি আঁচ করে মাঠে নেমে পড়েছেন রাজ্যের ক্রীড়া প্রশাসকরাও। ভারতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার ও রাজ্যের যুবকল্যাণ ও ক্রীড়া দফতরের প্রতিমন্ত্রী লক্ষ্মী রতন শুক্লাও (Laxmi Ratan Shukla) বিধায়ক হিসেবে পাওয়া তিন মাসের ভাতা রাজ্য আপৎকালীন ত্রাণ তহবিলে (State Emergency Relief Fund) অনুদান দিয়েছেন। এছাড়া CAB-র থেকে পাওয়া তিন মাসের পেনশনও তিনি অনুদান দিয়েছেন।

করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ডাকে সাড়া দিয়ে স্টেট এমার্জেন্সি রিলিফ ফান্ডে বুধবারই ২৫ লাখ টাকা আর্থিক অনুদান তুলে দেয় ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গল (CAB)। CAB প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া বুধবার স্টেট এমার্জেন্সি রিলিফ ফান্ডে ব্যক্তিগতভাবে ৫ লাখ তহবিলে অনুদান দিয়েছেন। সিএবি সচিব স্নেহাশিস গাঙ্গুলি, সহ-সভাপতি নরেশ ওঝা এবং যুগ্ম সচিব দেবব্রত দাস প্রত্যেকে স্টেট এমার্জেন্সি রিলিফ ফান্ডে এক লাখ টাকা করে তুলে দেন। CAB-র কোষাধক্ষ্য দেবাশিস গাঙ্গুলির ক্লাব সাউথ সাবারবান আরও এক লক্ষ টাকা তুলে দিয়েছে স্টেট এমার্জেন্সি রিলিফ ফান্ডে। আরও পড়ুন: Kolkata: লকডাউন পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে বাজার পরিদর্শনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি

লক্ষ্মী রতন বলেন, "আমরা সকলেই আমাদের সেরা সাধ্য অনুযায়ী অনুদান রাখছি। আমি ইতিমধ্যে বিধায়ক হিসেবে পাওয়া তিন মাসের বেতন মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান দিয়েছি। এছাড়াও, আমি বিসিসিআই থেকে পেনশন পাই। পেনশনের তিন মাসের টাকাও অনুদান দিয়েছি।"