Woman Blame To Sperm Bank: ছ’ফুট উচ্চতার স্পার্ম ডোনারের ঔরসে জন্মাল বামন সন্তান! বিচার চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হলেন মহিলা
স্পার্ম (প্রতীকী ছবি: Maxpixel)

মস্কো, ৫ নভেম্বর: মা (Mother) হওয়ার স্বাদ পূরণ করতে চেয়েছিলেন। তাই সাহায্য নিয়েছিলেন ইনভিট্রো ফার্টিলাইজেশন বা আইভিএফ পদ্ধতির। ইচ্ছা ছিল সন্তান (Son) যেন লম্বা হয়। তাই বেছে নিয়েছিলেন ছ’ফুট উচ্চতার এক স্পার্ম ডোনারকে (Sperm Donor)। কিন্তু সন্তান জন্মানোর আগেই জানা গেল ডোয়ার্ফিজমে (Dwarfism) আক্রান্ত তাঁর ভাবি সন্তান। অর্থাৎ বড় হয়ে একজন খর্বকায় মানুষ হবেন তাঁর সন্তান। জন্মানোর পর চিকিৎসকেরা জানালেন ৪ ফুটের বেশি উচ্চতা হবে না তাঁর সন্তান। অর্থাৎ সারাজীবন একজন বামন হয়েই থাকতে হবে তাঁকে। তাই মেজাজ ধরে রাখতে না পেরে সটান ওই স্পার্ম ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে আদালতের দ্বারস্থ হলেন বছর ৪০-এর ওই মহিলা। সম্প্রতি এমন ঘটনাই ঘটে গিয়েছে রাশিয়াতে। মুহূর্তেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা। ভাইরালও হয়েছে নিমেষেই।

ওই মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে ওই স্পার্ম ব্যাঙ্ককে (Sperm Bank) সাময়িক সময়ের জন্য কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কপ্তেভস্কির জেলা আদালত। আনন্দবাজার পত্রিকার খবর অনুযায়ী, অবশ্য এই বিষয়ে ইতিমধ্যেই নিজেদের বক্তব্য জানিয়েছে অভিযুক্ত ওই স্পার্ম ব্যাঙ্ক। তাদের বক্তব্য, এটা তাদের ত্রুটি নয়। তারা উৎকৃষ্ট মানের স্পার্মই সরবরাহ করেছিলেন। তাই এই ভুলের দায় তারা কোনভাবেই নেবে না। আরও পড়ুন: Bardhaman: মূত্রথলিতে কেঁচো, চিকিৎসকদের অস্ত্রোপচারে ১৫ বছরের জটিল সমস্যা থেকে মুক্তি পেলেন ব্যক্তি

মেডিক্যাল বিশেষজ্ঞরা (Doctors) এই বিষয়ে বক্তব্য দিয়ে জানিয়েছেন, যার জন্য ডোয়ার্ফিজম হয়, তার সঙ্গে স্পার্ম ডোনারের সম্পর্ক নেই। তাঁদের মতে, অ্যাকান্দ্রোপ্লাজিয়া, যা সাধারণভাবে ডোয়ার্ফিজম নামেই পরিচিত, তা একটি ‘র‌্যানডম ইভেন্ট’। জিন পরিবর্তন বা জিনের মিউটেশনের জন্যই এই রোগ হয়। এই ধরনের রোগে ২০ হাজারে একজন আক্রান্ত হয় বলেও জানিয়েছেন তারা।