যোগীর রাজ্যে পুলিশের দাদাগিরি, বিনা কারণে বাইক আরোহী যুবককে বেধড়ক মারধর ও কটূক্তি (দেখুন ভিডিও)
যুবককে বেধড়ক মারধর করছে পুলিশ(Photo Credit: ANI)

লখনউ, ১৩ সেপ্টেম্বর: সংশোধিত মোটর ভেহিকেল আইন বলবৎ হতে না হতেই প্রকাশ্যে এল পুলিশের দাদাগিরি। এক যুবককে তাঁর বাইক থেকে নামিয়ে চলল বেধড়ক মারধর সঙ্গে অকথ্য গালি গালাজ। আক্রান্ত যুবক মার খেয়েও মারমুখী দুই পুলিশকর্মীর কাছে বার বার জানতে চাইছিলেন তাঁর অপরাধটা কী? কী কারণে তাঁকে এত মারধর করা হচ্ছে? যদিও অভিযুক্ত পুলিশকর্মীরা এর সদুত্তর দিতে পারেনি। এদিকে দুই অভিযুক্ত পুলিশকর্মীর মারধরের কীর্তি কেউ ক্যামেরা বন্দি করেন। পরে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতেই ভাইরাল হয়ে যায়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের সিদ্ধার্থ নগর জেলায়।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, দুই পুলিশকর্মী এক যুবককে রাস্তার মধ্যেই তাঁর ঘাড় ধরে টানাটানি করছেন। একই সঙ্গে চলছে চড় থাপ্পড় ও লাথি মারা। ভিডিওটিতে একটি দিশেহারা বালককেও দেখা যাচ্ছে। যে অসহায়ের মতো দাঁড়ি দাঁড়িয়ে কাকার উপরে হওয়া পুলিশি নির্যাতন দেখছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর, আক্রান্ত যুবকের নাম রিঙ্কু পাণ্ডে। তিনি ভাইরোকে নিয়ে বাইকে চড়ে বেরিয়েছেন। আচমকাই তাঁর পথ রোধ করে সাব ইন্সপেক্টর বীরেন্দ্র মিশ্র ও পুলিশ কনস্টেবল মহেন্দ্র প্রসাদ। দুজনেই প্রথমে গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চান। সেসব ঠিকই ছিল। অভিযোগ, তারপরেও বিনা কারণে রিঙ্কু পাণ্ডের সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু করেন। দেখা যায় দুজনেই পাণ্ডের উপরে চড়াও হয়েছেন, মারধর লাথি, কটূক্তি কিছুই বাদ যাচ্ছে না। আর মার খেতে খেতেও অপরাধ টা কী তা জানতে চাইছেন ওই যুবক। আরও পড়ুন-ছাগল চুরি করেছেন আজম খান, ফের ফাঁসলেন সমাজবাদী পার্টির এই বিতর্কিত সাংসদ

মারের চোটে যুবক মাটিতে পড়ে যেতেই তাঁকে চুল ধরে টেনে ফের মারতে শুরু করেন অভিযুক্ত পুলিশকর্মীদের একজন। আতঙ্কিত বাচ্চাটি ততক্ষণে ভয় পেয়ে কাকাকে বাঁচাতে চেষ্টা করতে গেলে সে-ও হাতে আঘাত পায়। এদিকে অপরাধের কারণ না জানিয়ে উল্টে আক্রান্তের মোটর বাইকের চাবি কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে অভিযুক্ত পুলিশকর্মীরা। এই মারধরের ভিডিও রাষ্ট্র হতেই মিশ্র ও প্রসাদকে সাপেন্ট করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। দুজনের বিরুদ্ধেই বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে।