Pilot, Attendant Indulge In PDA During Flight: বিমানে যাত্রীদের সামনেই শারীরিকভাবে ঘনিষ্ঠ হওয়ায় চাকরি গেল পাইলট ও বিমান সেবিকার
Representational Image (Photo Credits: PTI)

মুম্বই, ৩০ অক্টোবর:বিমানের মধ্যে প্রকাশ্যে শারীরিকভাবে ঘনিষ্ঠ (public display of affection) হওয়ার কারণে এক পাইলট (pilot) ও এক বিমান সেবিকাকে (flight attendant) চাকরি থেকে বরখাস্ত করল স্পাইসজেট ( SpiceJet)। গত মাসে দিল্লি থেকে কলকাতাগামী একটি বিমানে এই ঘটনা ঘটে। এক যাত্রীর থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর এই ব্যবস্থা নিয়েছে বিমান সংস্থাটি। জানা গেছে, যখন ঘটনাটি ঘটে তখন পাইল ডিউটিতে ছিলেন না। যদিও বিমানসেবিকা ডিউটিতে ছিলেন। আরও জানা যাচ্ছে যে ফার্স্ট অফিসার পাইলট বিমানে চড়েন অতিরিক্ত ক্র হিসেবে। তিনি তখন বিমান চালাচ্ছিলেন না। ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্ট ডিউটিতে ছিলেন ও ইউনিফর্ম পরে ছিলেন। দু'জনই পাশাপাশি আসনে বসেছিলেন বলেও জানা গেছে।

সূত্রকে উদ্ধৃত করে টাইমস অফ ইন্ডিয়া জানিয়েছ, "স্পাইসজেটের কাছে জানানো অভিযোগে যাত্রী জানিয়েছেন, বিমান সেবিকা ও এক যাত্রী অশোভন আচরণ করছিলেন। অভ্যন্তরীণ তদন্তে দেখা গেছে যে অশ্লীল আচরণে জড়িত যাত্রীটি হলেন ফার্স্ট ফ্লাইট অফিসার পাইলট ছিলেন। উভয়কেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল এবং তারপর চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়।" আরও পড়ুন: 5 Labour Killed In Kashmir: কাশ্মীরে বর্বর হত্যাকাণ্ডে আমরা হতবাক ও গভীরভাবে দুঃখিত: মমতা ব্যানার্জি

এই ঘটনা সামনে আসার পরই স্পাইসজেট ক্রদের জন্য নির্দেশিকা জারি করেছে। যাতে ‘কর্মক্ষেত্রে অনুপযুক্ত আচরণ’ সম্পর্কে বলা হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "কর্মক্ষেত্রে অসভ্য আচরণ কম্পানির (এয়ারলাইন) সুনামের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। সহকর্মীদের হতাশ করতে পারে এবং এটা গুরুতর নিরাপত্তা বিপর্যয় হতে পারে। যার পরিণতি খুব খারাপ। কর্মক্ষেত্রে কর্মীদের শালীনতা ও পেশাদারিত্ব (decorum and professionalism) বজায় রাখা উচিত। এই গটনায় জড়িত কেবিন ক্রু এবং পাইলট কর্মক্ষেত্রে দুটোর কোনওটাই বজায় রাখতে ব্যর্থ হন। তাঁরা পেশাদার জায়গায় ব্যক্তিগত জীবন দূরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছিলেন। যা কাজের জায়গায় অনভিপ্রেত।"

মে মাসে নাবালিকার সাথে যৌন মিলন করায় আমেরিকার এক পাইলটের পাঁচ বছরের জন্য জেল হয়েছিল। আর সেটি হয়েছিল চলন্ত বিমান। বিমানের নিয়ন্ত্রণ নিজের হাত থেকে ছেড়ে ‘অটোপাইলট’ মোডে দিয়ে রেখেছিলেন পাইলট। তিনি নিউ জার্সির বেডমিনস্টারের বাসিন্দা ৫৩ বছরের স্টিফেন বার্ডলি মেল৷ আমেরিকায় শিশুদের চিকিৎসার জন্য উড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ করে তাঁর স্বেচ্ছাসেবী বিমান সংস্থা এয়ার লাইফলাইন।