Haryana Assembly Elections 2019: সাইকেল চড়ে ভোট দিতে এলেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাট্টার
শতাব্দী এক্সপ্রেসে চড়েছেন মনোহর লালখাট্টার এবং ভোটকেন্দ্রে যান সাইকেলে চড়ে (Photo Credits: Khattar's Twitter account & ANI)

চণ্ডীগড়, ২১ অক্টোবর: চলছে মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানায় বিধানসভা নির্বাচনের (Haryana elections 2019) ভোটগ্রহণ। সকাল থেকেই ভোট দিতে শুরু করেছেন দুই রাজ্যের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। তবে চমক দিয়েছেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাট্টার (Manohar Lal Khattar)। সাইকেলে চেপে তিনি ভোটকেন্দ্রে যান। ভোট দেওয়ার জন্য সোমবার সকালেই চণ্ডীগড় (Chandigarh) থেকে নিজের শহর কর্নালে (Karnal) আসেন তিনি। শতাব্দী এক্সপ্রেসে (Shatabdi Express) চেপে বসেন তিনি। ট্রেনে চাপার ছবি তিনি টুইটও করেন। লেখেন, "প্রথমে ভোট দাও, পরে খাও। আমি আমার ভোট দিতে যাচ্ছি।" তিনি আরও লেখেন, "আমি রাজ্যের সকল নাগরিককে বিনীতভাবে অনুরোধ করছি যে আপনারও অবশ্যই আপনার ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। শক্তিশালী সরকার গঠনের জন্য আপনার একটি ভোটই গুরুত্বপূর্ণ।" কর্নাল আসন থেকে দ্বিতীয়বার লড়াই করছেন মনোহর লাল খাট্টার। ২০১৪ সালে ৬০ হাজারেরও বেশি ভোটের ব্যবধানে তিনি এই আসনে জিতেছিলেন।

হরিয়ানায় আজ সকাল ৭টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। রাজ্যের মোট বিধানসভা আসন ৯০টি। নির্বাচনের ফল ঘোষণা হবে ২৪ অক্টোবর। অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করতে হরিয়ানায় মোতায়েন রয়েছে ৪০ হাজার পুলিশ, ১৩ হাজারেও বেশি আধা সামরিক কর্মী এবং ২০ হাজারেও বেশি হোমগার্ড। এছাড়াও রয়েছে বিশেষ পুলিশ আধিকারিকরা। আরও পড়ুন: Maharashtra, Haryana Elections 2019: 'রেকর্ড ভোট দিয়ে গণতন্ত্রের উৎসবকে সমৃদ্ধ করুন', মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানা বিধানসভার ভোটগ্রহণ নিয়ে টুইট প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির

ভোট দেওয়ার পর মনোহর লাল খাট্টার বলেন, "রাজ্যজুড়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। কংগ্রেস সহ বিরোধী দলগুলি ইতিমধ্যে হেরে গেছে এবং যুদ্ধের মাঠ ছেড়ে দিয়েছে। তাদের দাবির কোনও মূল্য নেই।"

 

দুই রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন ছাড়াও দেশেকর ১৮টি রাজ্যের ৫৩টি বিধানসভা ও ২টি লোকসভা আসনে উপ-নির্বাচনের (Bypolls) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ভোট গণনা হবে বৃহস্পতিবার। আজ ভোটগ্রহণ পর্ব শুরুর পর প্রধানমন্ত্রী টুইটে লেখেন, "হরিয়ানা ও মহারাষ্ট্র বিধানসভায় নির্বাচন হচ্ছে। ভারতের বিভিন্ন স্থানেও উপ-নির্বাচন হচ্ছে। আমি এই রাজ্যগুলি ভোটারদের প্রতি রেকর্ড সংখ্যায় ভোটদানের আহ্বান জানাচ্ছি এবং বিপুলসংখ্যক ভোট দিয়ে তাঁরা গণতন্ত্রের উৎসবকে সমৃদ্ধ করবেন এই ব্যাপারে আমি আশাবাদী।"