Blood Donors Gets Hilsa In Kolkata: রক্ত দান করলেই 'মিলছে' ইলিশ, ইনডাকশন ওভেন
প্রতীকী ছবি (Photo: IANS)

কলকাতা, ১ নভেম্বর: তৃণমূলের উদ্যোগে আয়োজিত রক্তদান শিবির (Blood Donation Camp) ঘিরে জোর বিতর্ক। কারণ, অভিযোগ উঠেছে উপহারের প্রলোভন দেখিয়ে রক্তদাতার (Blood Donor) সংখ্যা বাড়ানোর চেষ্টা চলছে। ২৪ ঘণ্টার খবর অনুযায়ী, সেখানে রক্তদাতাদের উপহার হিসেবে ইনডাকশন ওভেন (Induction oven) দেওয়া হচ্ছে। এতেই শেষ নয়। রক্তদাতাদের নাকি ইলিশ (hilsa) মাছও দেওয়া হয়েছে। খবর পেয়ে রক্তদান শিবিরে হানা দেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা। মির্জাপুর বান্ধব সম্মিলনী ক্লাবের তরফে এই রক্তদান শিবিরের আয়োজন হলেও পিছনে রয়েছেন তৃণমূলের তাবড় সব নেতা।

শুক্রবার কলেজ স্কয়্যারে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করে তৃণমূল কংগ্রেস। অভিযোগ, সেখানে রক্তদাতাদের উপহার হিসাবে দেওয়া হচ্ছে ইলিশ মাছ ও ইনডাকশন ওভেন। এই বিষয়ে ২৪ ঘণ্টাকে স্থানীয় তৃণমূল নেতা সঞ্জয় নন্দী বলেন, "তৃণমূলের তাবড় নেতা-মন্ত্রী রক্তদান শিবিরে উপহার দেন। আর আমরা দিলেই দোষ। রক্তের বিনিময়ে উপহার দিচ্ছি একথা ঠিক নয়। রক্তদান করে ফেরার সময় আমরা রক্তদাতাদের হাতে সামান্য উপহার তুলে দিচ্ছি।" এক কদম এগিয়ে সঞ্জয়বাবু বলেন, "দিয়েছি বেশ করেছি। আবার দেব। পরেশ পাল, তাপস রায় রক্তদান শিবিরে উপহার দিলে তখন দোষ হয় না। যত দোষ আমাদের বেলা?" আরও পড়ুন: North Kolkata Bus Service: বন্ধ টালা ব্রিজ, লোকসান ঠেকাতে রুটে নেই বাস; ছুটির পর নারকীয় ভোগান্তিতে উত্তরের যাত্রীরা

রক্তদান শিবিরের সঙ্গে ‘স্বেচ্ছা’ শব্দটির গুরুত্ব অপরিসীম। কিন্তু এক্ষেত্রেও পাইয়ে দেওয়ার মানসিকতা থাবা বসিয়েছে এই কাজেও। কোথাও মোবাইল তো কোথাও রক্তের বিনিময়ে দাতাদের দেওয়া হচ্ছে এক কেজি ওজনের ইলিশ। কোথাও রান্নার গুঁড়ো মশলা এবং সর্ষের তেলের প্যাকেট! কোথাও আবার উপঢৌকনের তালিকায় রয়েছে ওয়াটার ফিল্টার, প্রেশার কুকার, রান্নার বাসন, ট্রলি ব্যাগ। এ বিষয়ে লাগাম টানতে গত বছরের জুন মাসে রক্তদান শিবিরে আর উপহার দেওয়া যাবে না বলে সরকারি নির্দেশনামা জারি করা হয় স্বাস্থ্য ভবন থেকে। রক্তসুরক্ষার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা ‘রাজ্য এইডস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ সমিতি’র জারি করা সেই অর্ডারে রাজ্যের সব ব্লাড ব্যাঙ্ককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, ‘উপহার নেই’ অঙ্গীকারে শিবির উদ্যোক্তাদের থেকে মুচলেকা নিয়ে তবেই ওই শিবিরে রক্ত সংগ্রহে যেতে পারবেন সংশ্লিষ্ট ব্লাড ব্যাঙ্কের কর্মীরা। যদিও সেই সব নির্দেশিকার তোয়াক্কা না করেই বেমালুম চলছে উপহারের বিনিময়ে রক্ত দেওয়া আর নেওয়া।