এই গরমে ট্রেনে চড়ে দার্জিলিং? তৎকালে টিকিট কাটুন এভাবেই
প্রতীকী ছবি(Photo Credit: Twitter)

মন তো সবসময়ই “চল পানসি বেলঘড়িয়া” হয়ে আছে।কিন্তু পায়ের তলায় সর্ষে থাকলেও যখনতখন বেড়াতে যাওয়ার সুযোগ হয়ে ওঠে না।এই গরমে পাহাড় টানতে থাকে, বিশেষ করে আমবাঙালির প্রিয় দার্জিলিং(Darjeeling), পাহাড়ের রানি।কাঠফাটা রোদ্দুর আর ভ্যাপসা গরম থেকে বাঁচতে সবাই হাওয়া বদল করতে উত্তরবঙ্গকেই বেছে নিচ্ছেন।তাই শেষমুহূর্তে ট্রেনে রিজার্ভেশন(Ticket Reservation) নাও মিলতে পারে।

এদিকে গিন্নি যদি ঠিক করেন দার্জিলিং যাবেন তখন কর্তাকে তো একটা বন্দোবস্ত করতেই হয়।দমদম থেকে বাগডোগরা যাওয়া বিমানের সংখ্যাও খুব একটা বেশি নয়।বাসেও যেতে পারেন তবে ট্রেনের যাত্রাপথ বাসের থেকে অনেকবেশি আরামদায়ক।এদিকে গরমের ছুটি শুরু হল বলে, তাই দেরি না করে এইবেলা টিকিটের তদারকি শুরু করে দিন।আর শুরু করবেন বললেই তো হল না, টিকিট থাকলে তো।কাঞ্চনকন্যা, কাঞ্চনজঙ্ঘা, সরাইঘাট, হলদিবাড়ি, উত্তরবঙ্গ, দার্জিলিং মেল, পদাতিক এক্সপ্রেস কোনওটিতেই মিলছে না টিকিট।অগত্যা আপনাকে তৎকালের উপরে ভরসা করতে হবে।গরম যখন তখন শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামরাই এক নম্বর পছন্দ।কিন্তু কীভাবে তৎকাল টিকিট কাটবেন, আজকের প্রতিবেদনে রইল তারই তত্ত্ব তালাশ।

আইআরসিটিসির ওয়েবসাইটে নিজস্ব অ্যাকাউন্ট

তৎকালে টিকিট বুক করার তেমন কোনও বিধিবদ্ধ শর্ত নেই।আপনি কোনও এজেন্টের কাছে না গিয়েই বাড়িতে বসে অনলাইনে এই টিকিট বুক করতে পারবেন।শুধু মনে রাখতে হবে যদি এসি কোচে যাওয়ার ইচ্ছে থাকে তবে অবশ্যই সকাল দশটায় আইআরসিটিসির (IRCTC)সাইট খুলে তৎকালে আপনার প্রয়োজনীয় টিকিট বুক করে নিন, স্লিপার ক্লাস হলে সময় আরও একঘণ্টা পিছিয়ে ১১টা হয়ে যাবে।প্রথমেই আইআরসিটিসির ওয়েবসাইটটিকে ভালভাবে চিনুন, সাইটের ইউআরএল জেনে নিয়ে ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের নাম নথিভুক্ত করে অ্যাকাউন্ট খুলে নিন।তাহলে সেখানেই নিজস্ব ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে সমস্ত ট্রেনের হালহকিকত জানতে পারবেন।সেইসঙ্গে পছন্দমতো ট্রেনে ভ্রমণের জন্য তৎকাল টিকিটও কেটে নিতে পারবেন।

নোটপ্যাডে যাত্রি তালিকার বিশদ বিবরণ

তৎকালে টিকিট বুক করতে হলে আপনাকে ইন্টারনেটের সঙ্গে বেশ সড়গড় হতে হবে।কেননা প্রত্যেকেই চাইবেন সব থেকে ভাল আসনটি বুক করে নির্দিষ্ট দিনে ট্রেন যাত্রা সুনিশ্চিত করা।তাই সকাল দশটা বাজতে না বাজতেই টিকিট বুকিং শুরু হয়ে যায়।একাজে পেশাদাররা দ্রুততার সঙ্গে বুকিং করতে থাকেন।তাই তাঁদের সঙ্গে এঁটে উঠতে গেলে অবশ্যই সাইট খুলে আগেভাগে যাত্রীর বিশদ বিবরণ লিখে রাখতে হবে।এজন্য সাইটেই বাইডিফল্ট নোটপ্যাড রয়েছে।সেখানেই সাধারণত ২০দিনের জন্য যাত্রী সম্পর্কিত বিবরণ সংরক্ষিত থাকবে।তাই টিকিট কাটার লাইনের প্রথমে থাকতে চাইলে আগেভাগে এই নোটপ্যাডটি পূরণ করুন।

আগেই লগ ইন করুন

তৎকাল টিকিটের দীর্ঘ লাইন এড়াতে সকাল দশটা বাজার কিছু আগেই আইআরসিটিসির(IRCTC) সাইটে চলে যান।আগেভাগেই নিজের অ্যাকাউন্টটি খুলে ফেলুন।তারপর কোথায় কবে যেতে চান তার তথ্য দিন সাইটের প্রধান ন্যাভিগেশন বারে। গন্তব্যের তথ্য পেলেই সাইট থেকে গ্রাহককে সংশ্লিষ্ট শাখার ট্রেনের বিবরণ জানানো হবে।এবার পছন্দসই ট্রেন নির্বাচন করে ফেলুন।সেই ট্রেন তালিকার মাথাতেই থাকবে টিকিটের বিবরণ অর্থাৎ জেনারেল, প্রিমিয়াম তৎকাল(Premium Tatkal) , সেখানে মহিলা ও তৎকাল আসনের জায়গায় রেডিও বোতাম দেখতে পাবেন।দেরি না করে তৎকালের জন্য নির্দিষ্ট বোতাম ক্লিক করুন।আপনি যে তৎকালে ভ্রমণে ইচ্ছুক তা ঠিক হওয়ার পরই পছন্দের ট্রেনের অপশনে ক্লিক করতে পারেন।

যাত্রী তালিকা পূরণ

তৎকাল টিকিট ও ট্রেন বেছে নিয়েছেন।এবার যাত্রীর বিশদ বিবরণ লিখুন। আগেই নোটপ্যাডে লিখেছেন তাই কপি করে যাত্রী বিবরণের অপশনে পেস্ট করে দিন।যদি আগেই মাস্টার লিস্ট পূরণ করে থাকেন তবে সংশ্লিষ্ট অপশনেই সেটি দেখাবে।সেই বোতামে ক্লিক করে যাত্রীর নামে টিকিট বুকিং শুরু করে দিন।

পেমেন্ট

ট্রেন পছন্দ করে যাত্রী তালিকা দিয়ে টিকিট তো বুক করে ফেলেছেন। পুরো কাজটি তখনই সম্পূর্ণ হবে যখন আপনি টিকিটের অনুপাতে নির্ধারিত টাকা পেমেন্ট করে ফেলবেন।তাই উপরোক্ত কাজগুলি সম্পূর্ণ করে আগে পেমেন্ট অপশনে যান। মূলত ডেবিট, ক্রেডিট কার্ড, নেট ব্যাংকিং, মোবাইল ওয়ালেটও ও আইআরসিটিসি-র ওয়ালেট(IRCTC Wallet) থেকে পেমেন্ট প্রক্রিয়া সারতে পারেন।

সঙ্গেই রাখুন ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড(Debit/Credit card)

তৎকালে টিকিট কাটার প্রক্রিয়া দ্রুততার সঙ্গেই হয়, তাই পেমেন্ট অপশনে গিয়ে সময় নিলে লিংক ফেল থেকে শুরু করে এররের মতো সমস্যাও হতে পারে।সময় বাঁচাতে হাতের কাছেই ডেবিট অথবা ক্রেডিট কার্ডটি রাখুন।এরপর পেমেন্ট অপশন এলেই তড়িঘড়ি যাবতীয় রিকয়্যারমেন্ট পূরণ করে ফেলুন।

হাই স্পিড ইন্টারনেট(High Speed Internet)

তৎকালে টিকিট কাটার সময় ইন্টারনেটকেও বেশ সক্রিয় হতে হবে।তাই এসব ক্ষেত্রে হাই স্পিড ইন্টারনেট ব্যবহার করা জরুরি।কোনওভাবে নেট স্লো থাকলে গোটা প্রক্রিয়া বিঘ্নিত হতে পারে। তাই অনলাইনে তৎকাল টিকিট কাটার সময় শুধু আইআরসিটিসি-র সাইটটি খোলা রাখুন, খেয়াল রাখবেন তখন যেন অন্য কোনও সোশ্যাল নেটওয়ার্কিংসাইট না চলে।