Bad Habits: সকালের এই বদ অভ্যাসগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, পরিবর্তন করুন এই অভ্যাসগুলো...

অনেক ধরনের রোগ থেকে রক্ষা করতে পারে একটি স্বাস্থ্যকর রুটিন। বিশেষ করে সকালের অভ্যাস সরাসরি প্রভাব ফেলে স্বাস্থ্যের উপর। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালের কিছু অভ্যাস মন ও শরীরের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলার পাশাপাশি সুস্থ ও ফিট রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। জীবনে স্বাস্থ্যকে সবথেকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত এবং এর জন্য সবার প্রথমে দরকার সকালে সঠিক সময়ে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করা। সকালে সঠিক সময়ে ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে, খাদ্যতালিকায় কিছু পরিবর্তন অনেক দিক থেকেই উপকারী হতে পারে। এবার জেনে নেওয়া যাক কোন কোন অভ্যাস ত্যাগ করা উচিত।

  • সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম ভাঙিয়ে বিছানা থেকে ওঠা বেশিরভাগের মানুষের জন্য খুব কঠিন কাজ। বর্তমান যুগে প্রায় সকলেই সকালে ওঠার জন্য অ্যালার্ম দেয়, তবে অ্যালার্ম বাজলে তা বন্ধ করে আবার ঘুমিয়ে যায়। কারণ আমরা জানি মোবাইল ফোনে অ্যালার্ম দেওয়া হলে সেটা বন্ধ করে দেওয়ার কিছুক্ষণ পর আবার বাজবে। এমন অভ্যাস থাকলে শীঘ্রই তা পরিবর্তন করা দরকার। সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠলে শারীরিক এবং মানসিক উভয় স্বাস্থ্যই ভালো থাকে।
  • চা এবং কফিতে ক্যাফেইন থাকে, তাই এটি অল্প সময়ের মধ্যে শক্তি দেয়। তবে সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যাফেইন গ্রহণ করলে অনেক ধরণের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হওয়ার ঝুঁকি থাকে। অতিরিক্ত মাত্রায় ক্যাফেইন খেলে ঘুমের সমস্যা হওয়ার পাশাপাশি দুশ্চিন্তা এবং বারবার মেজাজ পরিবর্তনের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। এছাড়াও, অতিরিক্ত ক্যাফেইন খেলে হৃদরোগের সমস্যা বাড়তে পারে।
  • অনেকেই মনে করেন সকালের খাবার না খেলে ওজন কমে যায়। তবে এই অভ্যাস ফলে উপকারের পরিবর্তে শরীরে অনেক ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে। সকালের খাবার না খেলে স্থূলতা, ডায়াবেটিস এবং হৃদরোগের সমস্যা বাড়তে পারে। এছাড়া রাতে প্রায় ৮ ঘন্টা খালি পেটে থাকার পর সকালে খাবার না খেলে শরীর দুর্বল হয়ে যেতে পারে। তাই সকালে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া উচিত, এটি শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
  • স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালে ব্যায়াম করলে শরীর অনেক ধরনের রোগের সঙ্গে লড়াই করতে পারে। সকালে ব্যায়াম করলে শরীরে শক্তি এবং মস্তিষ্কে ভালো হরমোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। ব্যায়াম না করলে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, শ্বাসকষ্টের পাশাপাশি ওজন বৃদ্ধি ও স্থূলতার মতো রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়। সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন কমপক্ষে ৩০ মিনিট ব্যায়াম করার অভ্যাস করা উচিত।