মন্দার কোপে এবার সাবান শিল্প, চাহিদা বাড়াতে লাক্স-লাইফবয়ের দাম কমছে
লাক্স সাবানের প্রতীকী ছবি (Photo Credit: Facebook)

দিল্লি, ২৮ আগস্ট: ভারতীয় অর্থনীতিতে এখন মন্দার গতি, এর প্রভাবে বিপর্যস্ত দেশের সাবান শিল্পও। মন্দার বাজারে তাই নয়া পদ্ধতিতে লাভের মুখ দেখতে চাইছে হিন্দুস্তান ইউনি লিভার ও উইপ্রো কনজিউমার কেয়ারের মতো সাবান প্রস্তুতকারী সংস্থা। এজন্য হিন্দুস্তান ইউনি লিভারের তৈরি লাক্স ও লাইফবয় সাবানের দাম কমেছে, দেখাদেখি সান্তুর (Santoor Soap) সাবানের দাম কমিয়ে দিয়েছে উইপ্রো কনজিউমার কেয়ার (Wipro Consumer Care)। এই দুই সংস্থার দাবি, বাজারে সাবানের চাহিদা বাড়াতেই দাম কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্য়েই হিন্দুস্তান ইউনি লিভারের (Hindustan Unilever) তরফে জানা গিয়েছে লাইফবয় (Lifeboy) ও লাক্সের (Lux) দাম চার থেকে ছয় শতাংশ কমেছে।

ইকনমিক টাইমসের খবর অনুযায়ী উইপ্রোর তরফে মুখ খুলেছেন অনিল চুঘ (Anil Chugh) । তিনি বলেছেন, ‘হ্যাঁ আমরা সাবানের দাম কমিয়ে দিয়েছি। ভোক্তাদের কাছে কম পয়সায় সাবান পৌঁছে দেব। আমরা বিশ্বাস করি এর ফলে সাবান ব্যবহার আরও বেশি করে হবে, তাই বিক্রিও বাড়বে।’ বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এই দাম কমিয়ে বাজারে সাবান বিক্রির প্রক্রিয়া কাজে লাগতে পারে। এক নতুন শ্রেণির ভোক্তাও তৈরি হয়ে যাবে এই সময়। যারা কম দামে সাবান কিনতে আগ্রহ দেখাবে। আরও পড়ুন-বিক্রিবাট্টা নেই, মন্দার খাঁড়া থেকে বাঁচতে ৩ হাজার কর্মীকে ছাঁটাই মারুতি সুজুকির

বর্তমানে এই অর্থনৈতিক মন্দার ছবি গোটা বাজারেকেই প্রভাবিত করেছে। দেশের এই দুর্বল অর্থনীতির সমস্যার সঙ্গে নিরন্তর যুদ্ধ করে টিকে থাকার চেষ্টা করে চলেছে বিভিন্ন শিল্প। এই তালিকায় গাড়ির শিল্পের পাশাপাশি রয়েছে বিভিন্ন বিস্কুট প্রস্তুত কারক সংস্থাও। স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার এক সাম্প্রতিক গবেষণা রিপোর্টে এই অর্থনৈতিক মন্দার কারণটি সুন্দরভাবে ব্যাখা করা হয়েছে। রিপোর্টে বলছে, গ্রামাঞ্চলে ভোগ্যপণ্যের প্রতি চাহিদার একটা বিরাট অভাব রয়েছে। এটা আমরা সকলেই জানি। আর এই অভাবই আজকের ভারতে অর্থনৈতিক মন্দার অন্যতম কারণ।

এদিকে মন্দার প্রকোপে, পার্লে মারি কর্মী ছাঁটাই করছে। ইতিমধ্যে গাড়ি শিল্পে তিন লক্ষ কর্মী ছাঁটাই হয়ে গিয়েছে। গতকালই ফের ৩ হাজার অস্থায়ী কর্মীকে পাকাপাকি ছুটি দেওয়ার খবর শেয়ার হোল্ডারদের বার্ষিক সভায় জানিয়েছেন সুজুকি ইন্ডিয়ার (Suzuki India) চেয়ারম্যান আরসি ভার্গব। মন্দার প্রকোপে যে দেশের অর্থনীতির হাল দুর্বল থেকে দুর্বলতর হচ্ছে, তা এই ছবিই বেশ বুঝিয়ে দেয়।