Telangana Shocker: সাইন ল্যাঙ্গুয়েজে সেলফি ভিডিয়ো রেকর্ড করে আত্মহত্যা প্রতিবন্ধী যুবক-যুবতির
আগুনের প্রতীকী ছবি (Photo Credits: Pixabay)

নালগোন্ডা, ১১ সেপ্টেম্বর: বিশেষ ভাবে সক্ষম এক যুবক ও যুবতির আত্মহত্যা (Suicide)। বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে তেলাঙ্গানার (Telangana) নালগোন্ডা জেলায় ঘটনাটি ঘটেছে। গায়ে আগুন দিয়ে তাঁরা আত্মহত্যা করেছেন। দু'জনই কথা বলতে ও কানে শুনতে পান না। আত্মহত্যার আগে সাইন ল্যাঙ্গুয়েজে একটি সেলফি ভিডিয়ো রেকর্ড করে তাঁরা আত্মহত্যার (Suicide) কথা জানিয়েছেন। আর নিজেরাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, আত্মহত্যার আগে ওই দম্পতি ওই ভিডিয়োটি বন্ধুদের গ্রুপে পাঠিয়ে দেন। লোকেশানও পাঠান তাঁরা। এরপরই কয়েকজন বন্ধু পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে দম্পতির বাড়ি পৌঁছান। সেখান থেকে তাঁদের দগ্ধ দেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশের এক কর্তা বলেন, শৈক মাস্তান আলি ও এন অশ্বিনী দুজনই একটি ই-কমার্স জায়ান্টের প্যাকিং বিভাগে কর্মরত ছিলেন এবং ছয় মাস আগে মহিলা নিখোঁজ হন। এই বিষয়ে হায়দরাবাদের মহিলা থানায় মিসিং ডায়েরি করা হয়েছিল। আরও পড়ুন: Kangana Ranaut vs BMC: কঙ্গনা রানাউত কাণ্ডে বিরক্ত বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, অযোধ্যায় আর স্বাগত নন উদ্ধব ঠাকরে

জানা যাচ্ছে, অন্ধ্রপ্রদেশের গুন্টুরের বাসিন্দা শৈক মাস্তান আলি বিবাহিত ছিলেন, তেলাঙ্গানার নিজামাবাদের বাসিন্দা ২০ বছরের অশ্বিনী ছিলেন অবিবাহিত। তাঁরা দু'জনই হায়দরাবাদের মেহেন্দি পট্টনাম এলাকায় আলাদা আলাদা থাকতেন। সোমবার তাঁরা দু'জনেই নিখোঁজ হয়ে যান। পরে অশ্বিনীর পরিবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। বুধবার রাতে তাঁদের দু'জনের মোবাইল ফোন বন্ধ ছিল। এক বন্ধুর হোয়াটসঅ্যাপে শেষ ভিডিয়োটি তাঁরা পাঠিয়েছিলেন।

মস্তান আলি ও অশ্বিনীকে বাঁচানোর জন্য বন্ধুরা ভাড়া করা ট্যাক্সি দিয়ে হায়দরাবাদ থেকে নালগোন্ডায় যান। যদিও তাতে কোনও লাভ হয়নি। এ ঘটনায় পুলিশ একটি মামলা দায়ের করেছে এবং তদন্ত শুরু হয়েছে।