INX Media Case:আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় পি চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে সিবিআই-এর চার্জশিট পেশ,  তালিকায় ছেলে কার্তির সঙ্গে ইন্দ্রাণী ও পিটার মুখার্জি
পি চিদম্বরম(Photo Credit: ANI)

নতুন দিল্লি, ১৮ অক্টোবর: অবশেষে মাস খানেকেরও বেশি সময় ধরে তিহাড় জেলে কাটানোর পর শুক্রবার প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমের (P Chidamram) বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দিল সিবিআই (CBI)। এই চার্জশিটে প্রবীণ কংগ্রেস নেতা ছাড়াও আর ১৩ জনের নাম রয়েছে। এই ১৩ জনের মধ্যে ছেলে কার্তি চিদাম্বরম ও আইএনএক্স মিডিয়ার মালিত পিটার এবং ইন্দ্রাণী মুখার্জির (Pitar Mukherjee & Indrani Mukherjee) নামও রয়েছে। গত ২১ আগস্ট চিদাম্বরমকে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। গত বুধবার পর্যন্ত সিবিআই হেফাজতেই ছিলেন তিনি। বুধবার দিল্লি আদালতের নির্দেশে তাঁকে ১৪ দিনের জন্যে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেটের (ED) হেফাজতে পাঠানো হয়। ইডি তাঁকে হেফাজতে নিক, বরাবরই আদালতে আর্জি জানিয়েছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। প্রায় দেড় মাস পর আশা পূরণ।

ইডি হেফাজতে বাড়ির খাবার খেতে পাবেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা। মিলবে ওষুধও এই খবর এককথায় চিদাম্বরমের পরিবারও তাঁর শুভাকাঙ্খীদের স্বস্তি দিয়েছে। স্বস্তি পেয়েছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীও প্রায় দেড় মাসের কাছাকাছি সময় তিনি তিহাড় জেলের সাত নম্বর কুঠুরিতে বন্দি থেকেছেন সেই অভিজ্ঞতা মোটেই সুখকর নয়। আরও  পড়ুন-ভারতের পরবর্তী প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে, অবসরের আগে উত্তরসূরির নাম সুপারিশ করলেন রঞ্জন গগৈ

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে আইএনএক্স মিডিয়া ৩০০ কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) পায়। সেই অনুমোদন দেয় ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রোমোশন বোর্ড (এফআইপিবি)। কিন্তু সেই বিনিয়োগ এফডিআই-এর নিয়ম মেনে হয়নি বলে অভিযোগ। আরও অভিযোগ, মাত্র ৪.৬২ কোটি টাকার বিনিয়োগের অনুমোদন পেলেও আইএনএক্স মিডিয়া শেয়ার বিক্রি করে ৩০৫ কোটি টাকা তোলে। এই গোটা প্রক্রিয়ার সময় ইউপিএ জমানায় অর্থমন্ত্রী ছিলেন পি চিদাম্বরম। এর পরে ২০১৭ সালের ১৫ মে এই আর্থিক লেনদেন অসঙ্গতির অভিযোগে এফআইআর দায়ের করে সিবিআই। এই আইএনএক্স মিডিয়ার আবার মালিক ছিলেন পিটার এবং তাঁর স্ত্রী ইন্দ্রাণী মুখার্জি। পরে নাকি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার জেরায় এই এফআইপিবির অনুমোদন থেকে শুরু করে যে উৎকোচ মুখার্জিরা কার্তিক দিয়েছে তা-ও জেরায় স্বীকার করে নিয়েছেন ইন্দ্রাণী। তবে সেই টাকার হদিশ এখনও মেলেনি। চার্জশিট দেখে আদালত কী রায় দেয় এখন সেটাই দেখার। পাশাপাশি সিবিআইয়ের কবল থেকে চিদম্বরম এখন ইডির কোর্টে, ইডি এবার প্রবীণ কংগ্রেস নেতাকে নিয়ে কীভাবে খেলে তাও দর্শনীয় বৈকি।