বিয়ে করতে হলে বরকে শৌচাগারে দাঁডিয়ে তুলতেই হবে সেলফি! না হলে মিলবে না সরকারি প্রকল্পের সুবিধা
ফাইল ফোটো (Photo Credits: IANS)

ভোপাল, ১০ অক্টোবর: বিয়ে করতে গেলে অনেক কিছুই করতে হয়। নিজের পায়ে দাঁড়ানো থেকে বিয়ের খরচ জোগাড়। তবে আপনাকে যদি বলা হয়, বিয়ে করতে হলে আগে শৌচাগারে ( lavatory) দাঁড়িয়ে সেলফি (Selfie) তুলতে তবে। শুনে ভিমরি খাচ্ছেন? তবে ঠিক এটাই নিয়ম মধ্যপ্রদেশে (Madhya Pradesh)। সরকারি প্রকল্পে আর্থিক সুবিধা পেতে মধ্যপ্রদেশের বরদের (Groom) শৌচাগারে দাঁড়িয়ে সেলফি তুলতে হয়, যাতে তাঁর বউ মুখ্যমন্ত্রী কন্যা বিবাহ / নিকাহ প্রকল্পের আওতায় ৫১ হাজার টাকা পেতে পারে। বরের ছবি দেখিয়ে বউরা আবার এটা প্রমাণ করে যে তাঁর স্বামীর ঘরে একটি শৌচাগার রয়েছে।

মধ্যপ্রদশে মুখ্যমন্ত্রী কন্যা বিবাহ/ নিকাহ স্কিমের (Mukhya Mantri Kanya Vivah/Nikah Scheme) জন্য আবেদন করতে গেলে কনেকে এটা প্রমাণ করতেই হয় যে তার স্বামীর বাড়িতে শৌচাগার রয়েছে। যেহেতু সরকারি আধিকারিকরা প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে দেখে আসতে পারে না যে সেই বাড়িতে শৌচাগার আছে কি না, তাই তারা বরকে শৌচাগারে দাঁড়িয়ে একটি সেলফি তুলে আবেদনের সঙ্গে যোগ করতে বলে। ২০১৩ সালে এই প্রকল্পটি চালু হওয়ার পর থেকেই বাড়িতে শৌচাগার থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়। তবে শৌচাগারে দাঁড়িয়ে বরের সেলফি সাম্প্রতিক সংযোজন। আরও পড়ুন:  পুরোনো প্রথা ভেঙে ত্রিপুরায় হল না পশুবলি

রাজ্যের সামাজিক ন্যায়বিচার এবং প্রতিবন্ধী কল্যাণ দফতরের প্রধান সচিব জেএন কানসোটিয়া বলেন, "বিয়ের আগে বাড়িতে শৌচাগার রয়েছে তা প্রমাণ করার জন্য এই নিয়ম খারাপ নয়। এনিয়ে সামাজিক সুরক্ষা দফতরও কোনও নির্দেশিকা জারি করেনি। তবে তা হলে আরও ভালো হতে পারে।" একই বক্তব্য ভোপাল পৌরনিগমে এই প্রকল্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক সি বি মিশ্র। তিনি বলেন, "এর আগে নীতিতে শিথিলতা ছিল। বিয়ের ৩০ দিনের মধ্যে বরকে শৌচাগার তৈরি করতে বলা হয়েছিল। এখন তা আর করতে বলা হয় না। শৌচাগারে দাঁড়িয়ে বরের ছবি তোলার ক্ষেত্রে কোনও ভুল নেই। এটা বিয়ের কার্ডে ছাপা হয় না"

অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া শ্রেণির জন্য এই প্রকল্পটি চালু করা হয়েছিল। ক্ষমতায় আসার পরে কংগ্রেস সরকার এই প্রকল্পে আর্থিক সহায়তা ২৮,০০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫৫ হাজার করেছে।