Rajya Sabha Ruckus by Opposition: ‘বিরোধীদের আচরণে সংসদের পবিত্রতা নষ্ট হয়েছে’, অধিবেশন শেষে কাঁদলেন বেঙ্কাইয়া নায়ডু
বেঙ্কাইয়া নায়ডু (Photo Credits: PTI)

নতুন দিল্লি, ১১ আগস্ট: তিন কৃষি আইন খারিজের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার উত্তাল হয়ে ওঠে সংসদের রাজ্যসভার অধিবেশন৷ বুধবার বাদল অধিবেশনের সমাপ্তি ঘোষণা পর্বে সেই প্রসঙ্গ টেনে কেঁদে ফেললেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নায়ডু (Rajya Sabha Chairman M. Venkaiah Naidu)৷ তিনি বলেন, “বিরোধীদের আচরণে সংসদের পবিত্রতা নষ্ট হয়েছে। গণতন্ত্রের পবিত্র স্থানে মঙ্গলবার যা ঘটেছে, রাজ্যসভার চেয়ারম্যান হিসাবে তার পরিণাম ভেবে আমি সত্যিই ভীত। সারারাত ঘুমোতে পারিনি।” গতকাল কৃষি আইন তুলে নেওয়ার দাবিতে বিরোধীরা চেয়ারম্যানের সামনে রিপোর্টার্স টেবিলে বসে পড়েন৷ এমনকী, ডেপুটি চেয়ারম্যান ভুবনেশ্বর কলিতাকে ল্ক্ষ্য করে ছোঁড়া হয় বিধিনিয়মের ফাইল৷ এই ঘটনায় অভিযোগের তির এক সাংসদের দিকে৷ অধিবেশনে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়৷ আরও পড়ুন-Independence Day 2021 Fancy Dress Ideas for Kids: মহাত্মা গান্ধী থেকে নেতাজি সুভাষ, এই স্বাধীনতা দিবসে মহান দেশনেতাদের পরিধানে দেখুন নিজের সন্তানকে

এমনিতে আগামী ১৩ আগস্ট বাদল অধিবেশন সমাপ্তির দিন৷ যদিও দু’দিন আগে আজ ১১ তারিখ বুধবারে বাদল অধিবেশনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন উপরাষ্ট্রপতি৷ এদিকে নির্দিষ্ট সময়ের আগে বাদল অধিবেশন শেষ হওয়া নিয়ে নিয়ে লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরি বলেন, “হঠাৎ-ই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বাদল অধিবেশনের গোটা পর্ব জুড়ে কোনও জরুরি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়নি। যখন সব শেষ হয়ে গেল তখন প্রথমবার এলেন মোদিজি৷ তড়িঘড়ি বিল পাশ করানো হল৷   বিরোধীরা বক্তব্যের কোনও সম্প্রচার হল না৷”

গত ১৯ জুলাই সমসদের বাদল অধিবেশনের শুরু থেকেই প্রতিদিন বিভিন্ন কারণে অধিবেশন মুলতুবি থেকেছে৷ তিন কৃষি আইন, পেগাসাস, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিষের মূল্যবৃদ্ধি, পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি৷   কোনও কোনও বিষয় নিয়ে বিরোধীরা প্রতিদিন সংসদে সরব হয়েছে৷ এককথায় গোটা অধিবেশনই ছিল সরগরম৷ এই বাদল অধিবেশনের নজিরবিহীন ঘটনার মধ্যে উল্লেখযোগ্য, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হাত থেকে বিব-তির কাগজ ছিঁড়ে ফেলা৷ কাজ করে বাদল অধিবেশন থেকে সাসপেন্ড হন তৃণমূল বিধায়ক শান্তনু সেন৷ এরপরেও বেশ কয়েকজন বিধায়ককে সাসপেন্ড করা হয়েছে৷ এদিকে আজ বাদল অধিবেশনের সমাপ্তির ঘোষণার পরে অধ্যক্ষ ওম বিড়লা সাংবাদিকদের কাছে দুঃখপ্রকাশ করে বলেন, এই অধিবেশনে লোকসভায় আশানুরূপ কাজ হয়নি৷