‘যোগীর রাজ্যে অপরাধী নিরাপদে থাকে আর নির্যাতিতার প্রতিবাদকে দমিয়ে দেয় বিজেপি সরকার’, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী(Photo Credit: IANS)

লখনউ, ৩০ সেপ্টেম্বর: যোগী আদিত্যনাথের সরকার ঘৃণ্য অপরাধীকে আশ্রয় দিচ্ছে আর অত্যাচারিত নির্যাতিতার মুখ বন্ধ করার কোনওরকম সুযোগ ছাড়ছে না। শাহজাহানপুর ধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্ত চিন্ময়ানন্দের (Chinmayanand) জামিনের খবরে আলোড়ন পড়তেই লখনউতে নির্যাতিতা আইনের ছাত্রীর সমর্থনে পদযাত্রার সিদ্ধান্ত নেয় উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেস। তবে পুলিশ সেই পদযাত্রার অনুমতি না দিতেই ক্ষোভে ফেটে পড়লেন দলের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। চাঁচাছোলা ভাষায় রাজ্যের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন তিনি। শাহজাহানপুরের ধর্ষিতা তরুণীর সমর্থনে পদযাত্রা করতে গিয়ে আটক হয়েছেন উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের নেতা জিতিন প্রসাদ। এমনকী নির্যাতিতার সমর্থনে পদযাত্রার অনুমতিও দেয়নি পুলিশ। এরপরেই টুইটবার্তায় যোগীর সরকারকে একহাত নেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী (Priyanka Gandhi)।

তিনি বলেন, “শাহজাহানপুরের নির্যাতিতা তরুণী সুবিচারের দাবিতে লড়াই করছেন। আর অন্যদিকে তাঁর প্রতিবাদের ভাষা কেড়ে নিয়ে মুখ বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করছে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকার (Yogi Adityanath government)। কংগ্রেসের পদযাত্রাকে থামিয়ে দেওয়া হল। আমাদের সমাজকর্মীদের আটক করা হল। রাজ্যের বিজেপি সরকার এত ভয় পাচ্ছে কেন?” এরপরই পুলিশি আটকের মধ্যে থেকেই টুইট করে জিতিন প্রসাদ। জানান, “উত্তরপ্রদেশ এখনও কাশ্মীর হয়ে যায়নি। তবে শাহজাহানপুরের নির্যাতিতার সমর্থনে আওয়াজ তুলতে চেয়েছিলাম সেই অপরাধে আমাকে আটক করল পুলিশ। কোনও ব্যাকতি মানুষের মৌকিলক অধিকার কেড়ে নেওয়ার সাংবিধানিক ক্ষমতা কিন্তু বিজেপির নেই।”  নির্যাতিতার সমর্থনে পদযাত্রা করতে চেয়ে পুলিশি বাধার মুখে পড়া কংগ্রেস নেতাকে এদিন বচসায় জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। অন্যায়ের বিরুদ্ধে পথে নামতে চেয়ে তিনি শাহজাহানপুরের জেলা শাসকের কাছেও আবেদন করেছিলেন। তবে সে আবেদন গ্রাহ্য হয়নি। আরও পড়ুন-Onion Price Rise: দামের ঝাঁঝ নিয়ন্ত্রণে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা চাপাল কেন্দ্রীয় সরকার

এদিকে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, নবরাত্রী ও দুর্গাপুজো উপলক্ষে এখন শপিং তুঙ্গে। মানুষে কেনাকাটা করছে। এই সময় ব্যস্ত রাস্তা আটকে যদি কংগ্রেস পদযাত্রা করে তাহলে উৎসব প্রিয় রাজ্যবাসী সমস্যায় পড়বে। আর কংগ্রেস যে রাস্তা দিয়ে পদযাত্রা করতে চায় সেই রাস্তা নাকি একসঙ্গে ২০০০ লোকের জমায়েতও নিতে পারবে না। এদিকে এই নবরাত্রীতেই ১০ দিনের নয়াযাত্রার সূচনা করেছে কংগ্রেস। মূলত শাহাজাহানপুরের নির্যাতিতা তরুণী প্রতিবাদী কণ্ঠ দমিয়ে দিতে উদ্যোগী বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধেই এই পদযাত্রা।