হিজাব পরে  হনুমান চালিসা পাঠ করলেন বিজেপি নেত্রী, চেনেন নাকি?
ইসরত জাহান(Photo Credit: ANI Twiter)

গোলাবাড়ি, ১৮ জুলাই: হিজাব (hijab) পরে হনুমান চালিসা (Hanuman Chalisa) পাঠ করেছিলেন হাওড়ার বিজেপি নেত্রী ইসরত জাহান (Ishrat Jahan)। সেই অপরাধে তাঁর ভাড়ার বাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখাল কয়েকশো মানুষ। সেই ভিড়ের মধ্যে থেকে মহিলার দেওর তাঁকে প্রাণে মারার হুমকি দেয় বলে অভিযোগ। বৃহস্পতিবার এই ঘটনার পর গোলাবাড়ি থানায় অভিয়োগ দায়ের করেছেন ইসরত। প্রাণে বাঁচতে দুই সন্তানকে নিয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপন করে আছেন তিনি। তৃণমূলের দাবি, তিনতালাক সংক্রান্ত কেসে পারিবারিকভাবে বেশ বিপাকে ইসরত। এদিন পরিবারের সদস্যদের সহ্গে তিনি ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন। বিজেপি সেই ঝামেলাকেই রাজনৈতিক রং দিচ্ছে। আরও পড়ুন-কাটমানি ইস্যুতে নবান্নের সামনে শুয়ে পড়ে বিক্ষোভ বিজেপির, শহরে চাঞ্চল্য

হাওড়ার গোলাবাড়ির বাসিন্দা এই ইসরত জাহান তিনতালাক বিল নিয়ে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেন, তাইতো একডাকেই গোটা দেশ তাঁকে চেনে। বেশ কিছুদিন আগে তিনি বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন। স্বামী তালাক দেওয়ায় ছেলমেয়েকে নিয়ে ভাড়াবাড়িতে থাকছিলেন তিনি। গত মঙ্গলবার বিজেপির একটি সভায় তিনি হিজাব পরে হনুমান চালিসা পাঠ করেন। এরপর বুধবার সকালে তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে একদল মানুষ। সেই দলে তাঁর দেওর মুস্তাফা আনসারি এবং ভাড়াবাড়ির মালিক মুনাজির হোসেন ছিলেন। তাঁরা সকলে মিলে ইসরতকে গালিগালাজ করেন বলে অভিযোগ। তাঁকে ভাড়াবাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলার পাশাপাশি প্রাণে মারার হুমকিও দেওয়া হয়। ইসরতের অভিযোগ পেয়ে খতিয়ে দেখছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, গত মঙ্গলবার হাওড়ার ডবসন রোডে হনুমান চালিসা পাঠের আসর বসে, সেখনে হিজাব পরেই হনুমান চালিসা পাঠ করছিলেন ইসরত। তাতেই বিপত্তি।

হনুমান চালিসা পাঠ সম্পর্কে তাঁর বক্তব্য, ‘‘আমাদের দেশ ধর্ম নিরপেক্ষ। আমি কোন ধর্মের বই পাঠ করব, তা নিয়ে কেউ ফতোয়া দিতে পারেন না। আমাকে বারণও করতে পারে না।” তবে ইসরতকে নিয়ে বিতর্ক এর আগেও হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টে তিন তালাক মামলার পাঁচ আবেদনকারীর মধ্যে অন্যতম তিনি।