কার্গিল বিজয়ের ২০ বছর পূর্তি, সেনা জওয়ানদের ছবি শেয়ার করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি
কার্গিলে সেনা জওয়ানদের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদি(Photo Credit: Twitter)

দিল্লি, ২৬ জুলাই: কার্গিল দিবসের (Kargil Diwas)২০ বছর পূর্তিতে দেশ জুড়ে চলছে যহিদ জওয়ানদের উদ্দেশ্য শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের পালা। ১৯৯-এর ২৬ জুলাই পাকিস্তান সেনার কবল থেকে ফের দ্রাস ও কার্গিল সেক্টর ছিনিয়ে নেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। টানা ৬০দিনের লড়াই শেষে আসে জয়। এই যুদ্ধে ৫২৭জন সেনা শহিদ হন। তারপর কেটে গিয়েছে ২০টি বছর, তবুও সেই যুদ্ধের স্মৃতি এখনও টাটকা। অমর সেনাদের বলিদান ভুলে যাওয়ার নয়। তাই আজকের দিনে কার্গিল শহিদদের স্মরণ করে টুইট বার্তায় শ্রদ্ধা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। আরও পড়ুন-Jammu and Kashmir: পুলওয়ামায় চার জঙ্গিকে নিকেশ, সোপোরে পুলিশ স্টেশনে গ্রেনেড হামলা জঙ্গিদের

এক টুইট বার্তায় প্রধানমন্ত্রী জানালেন, যুদ্ধের সময় দলের তরফে তাঁর কার্গিলে যাওয়ার কথা। তিনি লিখেছেন, “তখন দলের হয়ে  জম্মু ও কাশ্মীর  এবং হিমাচল প্রদেশে কাজ করছিলাম। তাই কার্গিলে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছিল। ওই সফর এবং সেনা জওয়ানদের সঙ্গে কথাবার্তা বলার স্মৃতি ভোলার নয়।” দেশ মাতৃকার টানে সেনা জওয়ানরা অবলীলায় নিজেদের প্রাণ দিয়েছেন। পাকিস্তানের আচমকা দখলদারি থেকে মুক্তি পেয়েছে ভূস্বর্গের দ্রাস ও কার্গিল সেক্টর। সেনাবাহিনীর অকুতোভয় অভিযান ছাড়া এই বিজয় সম্ভব ছিল না। এদিন টুইটের সঙ্গে সেই সময়কার কাশ্মীর সফরের বেশ কয়েকটি ছবিও তিনি পোস্ট করেছেন।

বছর কুড়ি আগে আচমকাই জম্মু ও কাশ্মীরের কার্গিল, দ্রাস সেক্টর দখল করে নেয় পাক সেনা। সেই দখল মুক্ত করতে ভারতীয় সেনাকে টানা ৬০ দিন যুদ্ধ করতে হয়েছে। এই যুদ্ধই কার্গিল যুদ্ধ নামে খ্যাত। অপারেশন বিজয় নাম দিয়েই পাক সেনার বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করেছিল ভারতীয় সেনা। ২৬ জুলাই ফের ভারতের অধিকারে ফিরে আসে কার্গিল ও দ্রাস সেক্টর। তারপর থেকেই এই দিনটি কার্গিল বিজয় দিবস হিসেবে মহা সমারোহে পালিত হয়ে আসছে। দেখতে দেখতে সেই বিজয়ও ২টি বছর পার করে ফেলল। এদিন প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দও (President Ramnath Kobind)  কার্গিল বিজয় দিবসের স্মরণে টুইট করেছেন। বীর সেনানিদের শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি ভারতীয় সেনাকে অভিবাদন জানিয়েছেন তিনি। টুইট করে তিনি লিখেছেন, “কার্গিল বিজয় দিবসে সেনাবাহিনীকে আমার স্যালুট। কার্গিল চূড়ায় ভারতীয় সেনার জয়কে আজ গর্বের সঙ্গে স্মরণ করার দিন।”