‘প্রয়োজনে উত্তরপ্রদেশেও এনআরসি হবে, অসমের সিদ্ধান্ত সাহসী পদক্ষেপ’:  যোগী আদিত্যনাথ
যোগী আদিত্যনাথ(Photo Credit: IANS)

লখনউ, ১৬ সেপ্টেম্বর: প্রয়োজন পড়লে উত্তরপ্রদেশেও এনআরসি (NRC) করব। সোমবার অসমে এনআরসি প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে সাংবাদিকদের একথাই বললেন উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বলেন, অসমে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীর সংখ্যা মুহুর্মুহু বাড়ছিল। এর জেরে সেখানকার ভূমিপুত্রদের  সুস্থ জীবন যাপনই প্রশ্নের মুখে চলে এসেছে। তাই অসমে এই এনআরসি-র ব্যবস্থা নিঃসন্দেহে সাহসী ও গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। এতদিন অবৈধ অনুপ্রবেশের ফলে সেখানকার দরিদ্ররা আরও অসহায়তায় ডুবে গিয়েছে। এনআরসি কার্যকরী হওয়ায় এবার সমস্ত প্রকার সরকারি সুযোগ সুবিধার আওতায় তারা তবে অসমের পরিস্থিতি যদি কখনও উত্তরপ্রদেশেও তৈরি হয়, তাহলে এনআরসি-র মাধ্যমেই সমাধান করতে চান মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)।

এই প্রসঙ্গে যোগী আদিত্যনাথ বলেন, “এই এনআরসি পর্যায়ক্রমে শুরু হচ্ছে। প্রথমেই অসম হল। যদি প্রয়োজন পড়ে তো পরবর্তী যেকোনও পর্যায়ে এনআরসি প্রক্রিয়া উত্তরপ্রদেশেও শুরু করব। তাই অসমের এনআরসি প্রক্রিয়া আমাদের কাছে বিশেষ উদাহরণ হিসেবে থাকবে। জাতীয় সুরক্ষার জন্য এনআরসি-র বিকল্প আর কিছুই নেই। শুধু জাতীয় সুরক্ষাই বা বলি কেন, অবৈধ অনুপ্রবেশের কারণে দেশের দরিদ্র সমাজ তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়ে এসেছে। এনআরসি তাদের সহায়ক হবে।” শুধু উত্তরপ্রদেশই নয়, গতকাল অর্থাৎ রবিবার এনআরসি-কে সমর্থন জানিয়েছিলেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খাট্টর। তিনি বলেন, হরিয়ানাতেও অবৈধ অনুপ্রবেশকারী তাড়াতে এনআরসি-র প্রয়োগ হবে। পঞ্চকুলায় প্রাক্তন সেনা প্রধান সুনীল লাম্বা ও অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এইচএস ভাল্লার সঙ্গে আলোচনা করার পরেই এই কথা বলেন মনোহরলাল খাট্টর। তিনি বলেন, “এনআরসি হরিয়ানাতেও বাস্তবায়িত হবে। তার আগে রাজ্যের সমস্ত নাগরিকদের একটি পরিবার পরিচয়পত্র তৈরি হচ্ছে। সেখানে পরিবার পিছু প্রতিটি বাসিন্দার যাবতীয় তথ্য থাকবে। পরবর্তীতে যখন রাজ্যে এনআরসি হবে তখন এই পরিবার পরিচয়পত্রই মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করবে। এছাড়াও রাজ্যে সাংবিধান অনুসারী আইন কমিশনও তৈরির প্রচেষ্টা চলছে। সেখানে বুদ্ধিজীবীদের জন্য একটি বিভাগ থাকবে, যেখানে তাঁর স্বাধীনভাবে কাজ করার সুযোগ পাবেন।” আরও পড়ুন-Andhra Pradesh: গোদাবরী নদীতে নৌকা ডুবে মৃত ১১, প্রধানমন্ত্রীর শোকপ্রকাশ

এদিকে এনআরসি প্রসঙ্গে খট্টরে মন্তব্যকে কটাক্ষ করেছেন হরিয়ানার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ভপিন্দর সিং হুডা। তিনি বলেন, বিদেশিদের তাড়ানোর কথা বলছে বর্তমান সরকার। বিদেশিদের তাড়িয়ে দেওয়া হবে। আগে তো তাদের জন্য চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া শুরু করা হোক। এর আগে দিল্লির বিজেপি প্রধান মনোজ তিওয়ারি রাজধানীর জনসংখ্যা কমাতে এনআরসি-র কথা বলেছিলেন। আর গতমাসেই অসমে এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হয়েছে। তখন থেকে উত্তাল উত্তরপূর্বের এই রাজ্য।