Faridabad: মানিব্যাগে আটকে গেল বুলেট, 'নতুন জীবন' পেলেন উত্তরপ্রদেশের পুলিশ কনস্টেবল
বিজেন্দ্র কুমার (Photo: ANI)

ফিরোজাবাদ, ২২ ডিসেম্বর: একেই বোধ হয় বলে রাখে হরি মারে কে। উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) ফিরোজাবাদের (Firozabad ) এই পুলিশ কনস্টেবল এখন হয়তো মনে মনে এই আপ্তবাক্যই আওড়াচ্ছেন। বিজেন্দ্র কুমার (Vijendra Kumar) বিক্ষোভকারীদের সামলে এসে উর্দি খুলে অবাক হয়ে গেলেন। পকেটে থাকা মানিব্যাগ বাঁচিয়ে দিয়েছে তাঁর জীবন। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (Citizenship Amendment Act) বিরোধিতায় জমায়েত করেছিল বিক্ষোভকারীরা। সেই বিক্ষোভ সামলাতে গিয়ে হিমশিম খেয়েছে পুলিশ। বিক্ষোভের মাঝে গুলি চলেছে বলে দাবি করেছিল পুলিশ। সেই তথ্য সত্যি বলে প্রমাণ হল এক ঘটনায়। ১৫ ঘণ্টা পর উর্দি খুলে বুলেট (Bullet) উদ্ধার করলেন বিজেন্দ্র। শনিবার ফিরোজাবাদে বিক্ষোভ সামলাচ্ছিলেন বিজেন্দ্র। বিক্ষোভ চলাকালে গুলি চলে। গুলি তাঁর বুলেটপ্রুফ জ্যাকেটটি ভেদ করে ঢুকে যায়। যদিও বুলেট মানিব্যাগে আটকে যায়।

সংবাদমাধ্যমকে বিজেন্দ্র জানিয়েছেন, মনে হচ্ছে তিনি নতুন জীবন পেয়েছেন। তিনি বলেন, "আমি নলবন্দ এলাকায় ডিউটিতে ছিলাম। যখন কয়েকজন প্রতিবাদকারী আমাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। বুলেট আমার বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট ভেদ করে এবং আমার জ্যাকেটের পকেটে রাখা মানিব্যাগে আটকে যায়। মানিব্যাগে ৪টি এটিএম কার্ড এবং শিব এবং সাঁইবাবার কয়েকটি ছবি ছিল। মনে হচ্ছে এটি আমার দ্বিতীয় জীবন।" আরও পড়ুন:  Winter Solstice 2019: শুভ শীতকাল, বছরের সবচেয়ে ছোট দিনকে আহ্বান জানাল গুগল ডুডল

পুলিশ রিপোর্ট অনুসারে, উত্তরপ্রদেশে নাগরিকত্ব (সংশোধন) আইনের বিরোধিতায় প্রতিবাদ চলাকালীন ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। অন্তত ২৬৩ জন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে ৫৭ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে, এই অঞ্চলে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। রাজ্যের এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, "উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জনগণের সেবায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং জনগণের নিরাপত্তা এবং সুরক্ষা আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং সংবেদনশীল এলাকায় উপযুক্ত বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।"