NGT Extends Ban On Firecrackers: বাজি বিক্রি ও পোড়ানোয় নিষেধাজ্ঞা বাড়াল পরিবেশ আদালত
বাজি। (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ২ ডিসেম্বর: বাতাসের গুণগত মানের আরও অবনতি রোধে দিল্লি ও দেশের অন্য শহরে সব ধরণের বাজি (Firecrackers) বিক্রি ও পোড়ানো নিষিদ্ধ করল ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইব্য়ুনাল (National Green Tribunal)। আদেশে এনজিটি বলেছে, এই নিষেধাজ্ঞা দেশের সমস্ত শহর / নগরে প্রযোজ্য যেখানে বাতাসের গুণমান অত্যন্ত খারাপ। আদেশে ট্রাইব্যুনাল বলেছে যে করোনাভাইরাস মহামারীর আবহে দিল্লি এনসিআর সহ দেশের সমস্ত শহর /নগরে, যেখানে বাতাসের গুণমান খারাপ সেখানে বাজি বিক্রি, ব্যবহার নিষিদ্ধ থাকবে। যদিও পরিবেশ আদালত বলেছে, ক্রিসমাস, নিউ ইয়ারের সময় রাত ১১টা ৫৫ মিনিট থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত গ্রিন ক্র্যাকার ব্যবহার করা যেতে পারে যেখানে বায়ুর গুণমান মাঝারি বা ভালো।

ট্রাইব্যুনাল নিষিদ্ধ পটকাবাজি বিক্রি না করা এবং লঙ্ঘনকারীদের কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ আদায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য জেলাশাসকদের নির্দেশ দিয়েছে। এনজিটির আদেশে বলা হয়েছে, অন্যান্য প্রতিকার ব্যতীত দূষণের শিকার যে কোনও ব্যক্তি জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে যেতে পারেন। আরও পড়ুন: LPG Cylinder Prices: টানা ৬ মাস রান্নার গ্যাসের দাম অপরিবর্তিত, জেনে নিন কোনও শহরে কত দাম

শনিবার দিল্লির বাতাসের গুণমান খারাপেই থেকে গেছে এবং আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে যে চলতি সপ্তাহ পরিস্থিতি একই থাকবে। কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড বলেছে যে নভেম্বর মাসে দূষণের মাত্রা গত বছরের চেয়ে বেশি ছিল। এনজিটি এর আগে জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশের স্বার্থে সারাদেশে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বাজি বিক্রি ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছিল।