Uttar Pradesh: স্ত্রীকে খুন করে মৃতদেহ সহ নিজেকে ঘরবন্দি করলেন স্বামী, যোগী রাজ্যে চাঞ্চল্যকর কাণ্ড
প্রতীকী ছবি (Photo Credit: Pixabay)

লখনউ, ৩ মার্চঃ স্ত্রীকে খুন করে মৃতদেহ সহ নিজেকে ঘরবন্দি করলেন স্বামী। বাড়ি থেকে পচা গন্ধ ছড়াতেই সন্দেহ হয় প্রতিবেশীর। তাঁরা খবর দেন পুলিশে। বাড়ির দরজা খুলে পুলিশ ভিতরে ঢুকতেই হতবাক। ঘরের বিছানায় শোনায় স্ত্রীর মৃতদেহ। তাতে পচন ধরেছে। উত্তরপ্রদেশ গাজিয়াবাদের আম্বেদকর নগরের ঘটনায় এলাকায় তীব্র শোরগোল ছড়িয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম ভারত (৫৫)। পেশায় বিক্রয়কর্মী বা সেলসম্যানের কাজ করেন তিনি। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি স্ত্রী সুনিতাকে (৫১) শ্বাসরোধ করে খুন করেছেন তিনি। এরপর থেকে আর বাড়ির বাইরে বের হননি ভারত। স্ত্রীর মৃতদেহ নিয়ে নিজেকে ঘরবন্দি করে রেখেছিলেন। প্রাথমিকভাবে খুনের কারণ হিসাবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যেকার অশান্তিকে চিহ্নিত করছে পুলিশ। তবে তদন্ত চলছে।

স্ত্রীকে খুনের পর থেকে টানা তিনদিন বাড়ির বাইরে বের হননি অভিযুক্ত স্বামী। এরপর ১ মার্চ বাড়িতে তালা ঝুলিতে কাজে বেরিয়েছিলেন। এদিকে মৃতদেহ থেকে পচা গন্ধ এলাকায় ছড়াতে শুরু করে। সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। ২ মার্চ ভারতের বাড়ির বাইরে জটলা করেন তাঁরা। বাড়ির বাইরে চিৎকার চেঁচামেচির চোটে নেশাগ্রস্থ অবস্থাতেই বেরিয়ে আসেন অভিযুক্ত। সকলের সামনে বলতে থাকেন, স্ত্রী সুনিতাকে তিনি খুন করেছেন। ততক্ষণে খবর চলে গিয়েছে পুলিশের কাছে।

খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। বাড়ির ভিতর থেকে সুনিতাদেবীর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত ভারতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রতিবেশী সূত্রে খবর, ভারত এবং সুনিতা দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিবাহ। টাকা পয়সা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি লেগেই থাকত। এমনকি ভারতের প্রথম স্ত্রী মাঝে মধ্যেই বাড়িতে আসতেন। যা নিয়েও সুনিতা অসন্তুষ্ট ছিল। স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার মাঝেই খুনের ঘটনাটি ঘটেছে বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান।