পরীক্ষায় ভাল গ্রেডের লোভ দেখিয়ে লাগাতার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রী, শ্রীঘরে তামিলনাড়ুর বিজেপি নেতা
প্রতীকী ছবি(Photo Credit: PTI)

শিবগঙ্গা, ১১ অক্টোবর: পরীক্ষায় ভাল গ্রেডের লোভ দেখিয়ে ফের ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ উঠল বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে। এবার আর উত্তরপ্রদেশ নয় ঘটনাস্থল তামিলনাড়ুর (Tamilnadu) শিবগঙ্গা জেলা। আর অভিযুক্ত বিজেপি নেতা হলেন বছর ৬১-র শিবগুরু দুরাইরাজ (Sivaguru Durairaj)। অভিযুক্ত দুরাইরাজ স্থানীয় গুডম্যান নার্সিং কলেজের প্রিন্সিপাল। অভিযোগ, বছর উনিশের ছাত্রীকে ভাল গ্রেডের লোভ দেখিয়ে সে লাগাতার ধর্ষণ করত। দিনের পর দিন এই শারীরিক অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে মুখ খুলেছিলেন নির্যাতিতা। এরপর নির্যাতিতাকে প্রাণে মারার হুমকি দেয় শিবগুরু দুরাইরাজ। আদতে মাদুরাইয়ের বাসিন্দা ওই নির্যাতিতা তরুণীর ইচ্ছে করলেও শিবগুরুর মুখোশ খুলে দেওয়ার সাহস হয়নি। চলতি বছরেই তিনি নার্সিং কলেজ থেকে উত্তীর্ণ হন।

এরপর মাস খানেকের মধ্যেই চেন্নাইতে নির্যাতিতা তরুণীর বিয়ে হয়ে যায়। এদিকে শ্বশুরবাড়িতে আচমকা পেটে যন্ত্রণায় কাতর হয়ে পড়েনি তিনি। তাঁকে হাসাপাতালে নিয়ে গেলে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর চিকিৎসকরা জানান, তরুণী চার মাসের অন্তঃস্বত্তা। এই খবরে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। নতুন বউকে জেরা করতেই বেরিয়ে পড়ে আসল ঘটনা। নির্যাতিতা জানান, কীভাবে দিনের পর দিন নার্সিং কলেজে তিনি শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচারিত হয়েছে। আর কে এই ঘটনার জন্য দায়ী, তার নাম করতেও দ্বিধা বোধ করেননি নির্যাতিতা। আরও পড়ুন-তিন তালাকের অভিশাপ ঘুচিয়ে দেবতুল্য নরেন্দ্র মোদি, প্রধানমন্ত্রীকে উৎসর্গ করে মন্দির গড়লেন মুসলিম মহিলারা

এরপরেই শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে উঠে সোজা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্ত দুরাইরাজর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের হয়েছে। রাতারাতি গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুরাইরাজকে। এদিকে বিজেপির সাংস্কৃতিক দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতার এহেন কুকীর্তিতে মুখে কুলুপ এঁটেছে তামিলনাড়ুর দলীয় নেতৃত্ব।