WB Assembly Elections 2021:  ‘২ মে’র পর উনি কন্ডোমের দোকান খুলবেন’, সায়নীকে বিঁধলেন অগ্নিমিত্রা
সায়নী অগ্নিমিত্রা(Photo Credits: Social Media)

আসানসোল, ৫ এপ্রিল: ফের কুকথা রাজনীতির কারবারিদের মুখে। এবার বক্তা আসানসোল দক্ষিণের পদ্মপ্রার্থী অগ্নিমিত্রা পল (Agnimitra Paul)। নিশানায় ওই কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ। ভোট প্রচারে বেরিয়ে প্রতিপক্ষকে আক্রমণ করতে গিয়ে একেবারে বেফাঁস মন্তব্য অগ্নিমিত্রার। তিন বললেন, “২ মে’র পর উনি কন্ডোমের দোকান খুলবেন। নাকি সিনেমায় নামবেন তা উনিই জানেন।” এর প্রতিক্রিয়া দিতে নারাজ সায়নী বলেন, “আসলে আমি ওঁর লেভেলে নামতে পারব না। উনি যে কথাগুলি বলছেন, তার মধ্যে দিয়ে ওঁর পরিচয়, ওঁর বংশ পরিচয়, উনি কী ভাবে বড় হয়েছেন, তা প্রকাশ পাচ্ছে। উনি তো আমাকে ‘বাচ্চা’, ‘বাচ্চা’ বলতেন। উনি আমার থেকে এত বড় হয়ে উনি নিজের 'পেটি পলিটিক্স' যেটাকে আমি বলি, আমি ওঁকে অনেক সফিস্টিকেটেড ভাবতাম। কিন্তু, যতদিন যাচ্ছে, আমি দেখতে পাচ্ছি, উনি  ভীষণ নিম্নরুচি ও নিম্নমানের রাজনীতিবিদ। কাজেই ওঁকে নিয়ে কথা বলে আমি নিজের স্ট্যান্ডার্ড নিচে নামাতে পারব না।” আরও পড়ুন-Akshay Kumar Hospitalized: এবার করোনার কবলে অক্ষয়ের সংস্পর্শে আসা ৪৫ জন, দেশে নতুন সংক্রামিত লক্ষাধিক

রাজ্যে তৃতীয় দফা ভোটের আগে বিজেপি প্রার্থীর এহেন মন্তব্যে সরগরম রাজনৈতিক মহল। অগ্নিমিত্রা পলের কটূক্তি নিয়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড়ও। তবে রাজনীতিতে কুকথার ট্রেন্ড একেবারেই নতুন নয়। কিন্তু একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকে কুকথার ঝড় প্রায় আম্ফানের চেহারা নিয়েছে। সুযোগ পেলে প্রতিপক্ষকে চোখা চোখা শব্দবাণে বিদ্ধ করতে কেউই ছাড়ছেন না। এরমধ্যে শীর্ষে রয়েছে কুকথা। আর তানিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় তৈরি হচ্ছে মিম। এর আগেও বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁয়ের কটূক্তির শিকার হয়েছিলেন সায়নী ঘোষ। তবে সেবারে যেভাবে সৌমিত্র খাঁয়ের কটূক্তির জবাব সায়নী দিয়েছিলেন, এবারেও একইভাবে পাল্টা দিলেন অগ্নিমিত্রা পলকে।

জানা গেচে ফেসবুকে ইস্তাহর দিয়ে বিজেপি নেত্রী লিকেছিলেন আসানসোলে ল কলেজ হবে। এনিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন সায়নীকে। অভিনেত্রীর উত্তর শুনেি রেগে আগুন অগ্নিমিত্রা বলেন, “আমি একজন সাধারণ কর্মকর্তা হয়ে ল'কলেজ বানাব? আমি তৃণমূলের প্রার্থীকে বলতে চাই, আপনি কোন স্বর্গে বাস করেন? আপনি জানেন না কোন দলের হয়ে প্রচার করছেন বা কোন দলের প্রার্থী হয়েছেন? অবশ্য় না জানাটাই স্বাভাবিক। কারণ ২ বছর আগে এই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই তুলোধনা করেছিলেন নন্দনের চত্বরে দাঁড়িয়ে। এখন টিকিট পেয়ে গুণগান করছেন। এখন মমতা আপনার গুরুমা হয়ে গিয়েছে।”