Punjab: স্কুল চত্বরে শিশুকন্যার সামনেই গুলিতে ঝাঁঝরা শিক্ষিকা, মোহালিতে চাঞ্চল্য
খুনের প্রতীকী চিত্র (Photo Credit: File Photo)

মোহালি, ৬ ডিসেম্বর: বৃহস্পতিবার সাত সকালে শিশুকন্যার সামনে খুন হলেন শিক্ষিকা। মেয়েকে নিয়ে তিনি প্রতিদিনকার মতো স্কুলে যাচ্ছিলেন। মৃত শিক্ষিকার নাম সরবজিৎ কাউর (Sarabjit Kaur)। পাঞ্জাবের মোহালির (Mohali) খারার শহরের গ্লোবাল স্কুলের শিক্ষিকতা করেন। গতকাল তিনি মেয়েকে নিয়ে স্কুটিতে চড়ে কর্মক্ষেত্রে পৌঁছান। স্কুলের পার্কিং লটে তিনি যখন স্কুটি রাখছেন তখনই তাঁকে মুখোমুখি গুলি করে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবক। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। আততায়ীকে খুঁজে বের করতে শুরু হয়েছে তল্লাশি। যদিও প্রায় ২৪ ঘণ্টা কাটলেও খুনিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল সাতটা বেজে ৪৫ মিনিট নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে। আততায়ী ওই শিক্ষিকাকে পর পর তিনবার গুলি করে। মাকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে যেতে দেখে আতঙ্কে কাঁদতে কাঁদতে ছুটতে শুরু করে শিশুকন্যা। সরবজিৎ কাউর গত এপ্রিল থেকে ওই স্কুলে শিক্ষকতা করছেন। তিনি ফরাসী ও পাঞ্জাবী ভাষা শেখান। স্কুল থেকে দু কিলোমিটার দূরত্বের এসপিবি সোসাইটিতে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে থাকেন। আরও পড়ুন-Unnao: উন্নাও নির্যাতিতাকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টায় ধৃত ৫ জনের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির আশ্বাস যোগী আদিত্যনাথের

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন সকাল থেকেই স্কুলের চারদিকে ঘুরে বেড়াচ্ছিল এক ব্যক্তি। তার গায়ে শাল জড়ানো ছিল। সেই যে আততায়ী তাতে কোনওরকম সন্দেহ নেই। তবে খুনের কারণ এখনও বোঝা যাচ্ছে না। প্রতিটি দিক বিবেচনা করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। কে বা কারা ওই শিক্ষিকাকে কেন খুন করতে পারে তানিয়ে চলছে বিস্তর কাটাছেঁড়া। পুলিশ জানতে পেরেছে সরবজিৎ কাউর তাঁর স্বামীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ করিয়ে নিয়েছেন। তিনি যখন ফ্রান্সে থাকেন তখনই জানতে পেরেছিলেন যে স্বামী আগেও বিয়ে করেছে। আর সেই সংসারে একটি মেয়ে আছে। এরপরেই পত্রপাঠ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ততদিনে তাঁর কোল আলো করেও কন্যা সন্তান জন্মেছে।