ভূস্বর্গে পাক জঙ্গিদের নাশকতার ইঙ্গিত, সেনাকে সতর্ক করল কেন্দ্র
প্রতীকী ছবি(Photo Credit: PTI)

জম্মু ও কাশ্মীর, ১৬ আগস্ট: নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপার থেকে বড়সড় জঙ্গিহানা হতে পারে, উপত্যকার সেনা বাহিনীকে সতর্ক করল কেন্দ্র। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারার (Article 370) বিলোপের ঘটনা মেনে নিতে পারেনি পাকিস্তান, নানাভাবে ভারতকে ব্যতিব্যস্ত করেছে। সম্প্রতি সে দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, কাশ্মীরিদের স্বাধীনতা আন্দোলনে তাদের পাশে আছে পাকিস্তান। তাঁর বক্তব্যের মধ্যেই কোথায় যেন আগাম নাশকতার সূত্র লুকিয়ে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে প্রভাবিত হয়ে যে কোনও মুহূর্তে জঙ্গিরা নাশকতা চালাতে পারে। তাই বায়ুসেনা, চেক পোস্টকে সতর্ক করল কেন্দ্র। গোপন সূত্রে এই খবর পেয়েই যাবতীয় সতর্কতার আয়োজন করা হয়েছে। আরও পড়ুন-প্রয়োজনে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের নীতির বদল হবে, পোখরান থেকে পাকিস্তানকে সমঝে দিলেন রাজনাথ সিং

ইমরান খানের (Imran Khan) সরকার কাশ্মীর ইস্যুকে সামনে রেখে দুই দেশের যাবতীয় দ্বিপাক্ষিক চুক্তিকে ভেঙে দিয়েছে পাকিস্তান। বন্ধ হয়েছে থর ও সমজোতা এক্সপ্রেস। একই সঙ্গে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ইসলামাবাদ থেকে ফিরে আসতে হয়েছে। ইমরান খান এই প্রসঙ্গে অভিযোগ করেন, উপত্যকায় আরএসএস-এর দুষ্কৃতীরা সাধারণ মানুষের উপরে অত্যাচার শুরু করেছে। বিচারককে হুমকি দিচ্ছে। বিশিষ্টজনদের ভয় দেখাচ্ছে। যা পরিস্থিতি তা পুরো নাতসী বাহিনীর সঙ্গে মিলে যায়। এককথায় হিটলারের নাতসী বাহিনীর সঙ্গে আরএসএসের অত্যাচারের পরিধি তুলনা করেছেন ইমরান খান। এদিন জেবি সুব্রমণিয়াম বলেছেন, ৩৭০ ধারা বিলোপের পর উপত্যকার মানুষের কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। যতটুকু ক্ষয়ক্ষতি প্রকাশ্যে এসেছে তা পাকিস্তানের আগ বাড়িয়ে মধ্যস্থতা করার ফলেই ঘটেছে।

জনা গিয়েছে, এই মুহূর্তে উপত্যকার ২২ জেলার মধ্যে ১২টি জেলায় সামান্য সতর্কতা নিয়েছে প্রশাসন। এরমধ্যে পাঁচটা জেলার পরিস্থিতি একটু বেশি কড়াকড়িতে রয়েছে। তবে এই নিরাপত্তার জেরে কোনও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। তবে এখানেই শেষ নয়, আরও বড়সড় বিপদ হানতে চলেছে পাকিস্তান, রয়েসয়ে সেসব দিকে এগোচ্ছে তারা। উপত্যকায় কোনওরকম নাশকতা রুখতে সমস্ত সতর্কতা নেওয়া হয়েছে।