Karnataka: স্বামীর বিরুদ্ধে পুরুষত্বহীনতার মিথ্যা অভিযোগ মানসিক হয়রানির সমান: কর্নাটক হাইকোর্ট
Karnataka High Court (Photo: IANS)

বেঙ্গালুরু, ১৬ জুন: কোনও প্রমাণ ছাড়াই স্বামীর বিরুদ্ধে পুরুষত্বহীনতার (Impotence) অভিযোগ আনা মানসিক হয়রানির (Mental Harassment) সমান। বুধবার একটি মামলায় রায়ে একথা বলেছে কর্নাটক হাইকোর্ট (Karnataka High Court)। বুধবার আদালত আরও উল্লেখ করেছে যে স্বামী এক্ষেত্রে বিচ্ছেদের জন্য আবেদন করতে পারেন। বিচারপতি সুনীল দত্ত যাদবের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ ধারাওয়াদের বাসিন্দা এক ব্যক্তির করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এই আদেশ দেয়। ধারাওয়াদ পারিবারিক আদালত ওই ব্যক্তির বিবাহবিচ্ছেদের আবেদন খারিজ করে দিয়েছিল। তবে, কর্নাটক হাইকোর্ট এখন নিম্ন আদালতের রায় খারিজ করে দিয়েছে।

ওই ব্যক্তির পক্ষে রায় দিলেও তাঁর স্ত্রীর প্রতিও সদয় হয়েছে আদালত। বেঞ্চ আবেদনকারীকে নির্দেশ দিয়েছে যাতে তিনি তাঁর স্ত্রীকে মাসিক ৮ হাজার টাকা ভরণপোষণ দেন। পুনর্বিবাহ না করা পর্যন্তই এই মাসিক ভরণপোষণ পাবেন স্ত্রী। আদালত বলেছে, "স্ত্রী অভিযোগ করেছেন যে তাঁর স্বামী বিবাহের বাধ্যবাধকতা পালন করছেন না এবং যৌন ক্রিয়াকলাপে অক্ষম। কিন্তু, তিনি অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেননি।"

বেঞ্চ তার রায়ে বলেছে, এসব ভিত্তিহীন অভিযোগ স্বামীর মর্যাদা ক্ষুন্ন করবে। একজন শিক্ষিত মহিলা অন্যের সামনে তাঁর স্বামীর পুরুষত্বহীনতার অভিযোগ কখনই করবে না। সন্তান ধারণে স্বামীর অক্ষমতা সংক্রান্ত অভিযোগ মানসিক হয়রানির সমান। স্বামী জানিয়েছেন যে তিনি মেডিকেল পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত। এতদসত্ত্বেও স্ত্রী ডাক্তারি পরীক্ষায় অভিযোগ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন। হিন্দু বিবাহ আইন অনুসারে পুরুষত্বহীনতা বিচ্ছেদের কারণ হতে পারে না। এই বিষয়ে মিথ্যা অভিযোগ মানসিক হয়রানির সমান এবং এই পটভূমিতে স্বামী বিবাহবিচ্ছেদ চাইতেই পারেন। আরও পড়ুন: Rath Yatra 2022: রথযাত্রা উপলক্ষে পুরীতে সাজসাজ রব, জোর কদমে চলছে রথ নির্মাণের কাজ