শিক্ষকদের জন্য সুখবর, ২৩মে-র পর কী ঘোষণা করবেন মুখ্যমন্ত্রী?
ফাইল ছবি ( Photo credit-PTI)

রাজ্যু জুড়ে নির্বাচনী হাওয়া ভোটও চলছে পুরোদমে। এরমধ্যে রাজ্যের কম্পিউটার শিক্ষকদের বেতন-বৃদ্ধি সংক্রান্ত সুযোগ সুবিধা নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(CM Mamata Banerjee)। কারণ এখন যদি বিক্ষোভরত ওয়েস্ট বেঙ্গল স্কুল কম্পিউটার টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোশিয়েশনের(West Bengal Computer Teachers Welfare Association)  শিক্ষকদের জন্য কিছু ঘোষণা করেন তাহলে নির্বাচনী বিধিভঙ্গের দায় বর্তাতে পারে তাঁর উপরে। তাই ২৩ মে-র পরেই কম্পিউটার শিক্ষকদের জন্য লাভজনক কিছু ঘোষণা করবেন তিনি।

উল্লেখ্য, কম্পিউটার শিক্ষকরা সরকারি নিময় অনুযায়ী বেতন পান না। এখনও তাঁদের বেতন সাড়ে চার হাজার টাকাতেই থমকে আছে। গত ১২ বছরে এর কোনও হেরফের হয়নি। বহুবার বিষয়টি নিয়োগকারী সংস্থার কর্তাব্ক্তিদের জানানো হলেও কোনওরকম সুফল মেলেনি। তাই গত ২ এপ্রিল কলকাতার মিন্টোপার্কে মৌনমিছিল করে এই ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন ওই কম্পিউটার শিক্ষকরা। বলা বাহুল্য, সুফলের আশ্বাস দূরে যাক উল্টে সেই শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ মিছিলের উপরে পুলিশ চড়াও হয়, চলে বেধড়ক মারধর। এই আক্রমণ থেকে বাদ পড়েননি মহিলা শিক্ষকরাও। পুলিশের লাঠির আঘাতে প্রতিবাদকারীদের বেশিরভাগই আহত হন। তড়িঘড়ি আক্রান্তদের এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। বাকিদের আঘাত গুরুতর হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করে নেওয়া হয়। এরপরেই শিক্ষকদের বিক্ষোভ চরমে পৌঁছায়, নিরস্ত্র শিক্ষকদের উপরে পুলিশি আক্রমণের প্রতিবাদে পথে নামে বেশ কয়েকটি শিক্ষক সংগঠন।

ঘটনার পর জানা যায়, চাকরির দাবিতে এসএসসি উত্তীর্ণ প্রার্থীদের দীর্ঘ অনশন দেখেই অনুপ্রাণীত হয়েছিলেন এই কম্পিউটার শিক্ষকরা। অনশনমঞ্চে মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতি ও আশ্বাসবাণী তাঁদের মধ্যে আশার সঞ্চার করেছিল। সেজন্যই মৌন মিছিল শুরু করে। কিন্তু তার পরিণাম যে ভয়াবহ হতে চলেছে বুঝতেই পারেননি হতভাগ্য শিক্ষকরা। তবে মুখ্যমন্ত্রী যে তাঁদের জন্য ইতিবাচক ব্যবস্থার বন্দোবস্ত করেছেন এবং ভোট মিটলেই তিনি তা ঘোষণা করবেন। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের(Education minister Partho Chatterjee) মুখে এই খবর পেয়ে স্বস্তির ছাপ শিক্ষক মহলে। তবে এখনই এই কম্পিউটার শিক্ষকরা আন্দোলন থেকে সরে আসছেন না। মিন্টোপার্কের ঘটনার দিন পুলিশ আক্রান্ত শিক্ষকদের অনেকরই বিরুদ্ধে আদলতে মামলা করেছে। যতক্ষণ না সরকার থেকে সেই মামলা প্রত্যাহার করা হচ্ছে ততক্ষণ শান্তিপূর্ণ আন্দোলন জারি থাকবে বলেই জানা গিয়েছে।