Delhi: মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, মাস্ক পরে সচেতনতার বার্তা
মাস্ক পরে আছেন প্রধানমন্ত্রী (Photo Credit: ANI)

নতুন দিল্লি, ১১ এপ্রিল: লকডাউনের (ভবিষ্যত নিয়ে সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্স করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Prime Minister Narendra Modi)। আগামী মঙ্গলবার অর্থাৎ ১৪ এপ্রিল শেষ হচ্ছে লকডাউনের মেয়াদ। বুধবার থেকে কী হবে? লকডাউনের মেয়াদ কি আরও বাড়ানো হবে, নাকি ধাপে ধাপে তা তুলে দেওয়া হবে? এ সব বিষয়কে সামনে রেখেই এ দিন মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে মাস্ক (Mask) পরে থাকতে দেখা যায়। মুখ্যমন্ত্রীদের মধ্যে অনেকেই পরে আছে মাস্ক।

দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন (Lockdown) আগামী সপ্তাহে শেষ হতে চলেছে। এরই মধ্যে লকডাউনের দিন আরও বাড়ানো উচিত কিনা তা নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা। বলা যেতে পারে, এটা এখন ‘হট টপিক’। ইতিমধ্যেই অনেক রাজ্যই লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করেছে। যাতে দেশজুড়ে বেড়ে চলা করোনাভাইরাসের (Coronavirus) প্রকোপ আটকানো যায়। এরইমধ্যে ওড়িশা (Odisha) আবার দেশের প্রথম রাজ্য হিসেবে লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়েছে। নবীন পট্টনায়ক সরকার অবশ্য কেন্দ্রের অনুমতির জন্য অপেক্ষা করেনি। তারা ইতিমধ্যেই ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের দিন বাড়িয়েছে। তাছাড়া আজই লকডাউন ১ মে পর্যন্ত বাড়ানোর কথা জানিয়েছে পঞ্জাব (Punjab) সরকার। গতরাতেই এপ্রিলের ৩০ তারিখ পর্যন্ত লকডাউন বাড়িয়েছে রাজস্থান সরকার। আরও পড়ুন: Coronavirus Outbreak in India: ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭৪৪৭, নতুন করে মৃত্যু ৪০ জনের; সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ৬৪২ জন

দেশে বেড়েই চলেছে করোনা (Coronavirus) আক্রান্তের সংখ্যা। শনিবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও মৃত্যুর (Death) সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭৪৪৭। মন্ত্রকের সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রায় ১০৩৫ জন লোক সংক্রামিত হয়েছে। নতুন করে ৪০ জন মারা যাওয়ার পাশাপাশি মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৩৯। ৭৪৪৭ জন করোনাভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে ৬৫৬৫-র শরীরে এখনও সক্রিয় রয়েছে। ৬৪২ জন রোগী সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়েছেন। মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫৭৪। তামিলনাড়ুতে ৯১১ জন এবং দিল্লিতে ৯০১ জন আক্রান্ত। মহারাষ্ট্রেও করোনা ভাইরাসের কারণে ১১০ জন নিহত হওয়ার সর্বাধিক সংখ্যক মৃত্যু হয়। মধ্যপ্রদেশেও ৩৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন।