Coronavirus Lockdown: করোনার লকডাউনে মদের দোকানে মদ না পেয়ে আত্মহত্যা ব্যক্তির
Representational Image | (Photo Credits: PTI)

ত্রিশূর, ২৭ মার্চ: দেশজুড়ে লকডাউন (Lockdown) পরিস্থিতি। সামান্য আনাজ জোগাড় করতে কাঠ-খড় পোড়াতে হচ্ছে। বুধবার থেকে কেরালায় (Kerala) বন্ধ মদের বিক্রিবাট্টা। মদ না পাওয়ার কারণে শুক্রবার ত্রিশূরের কাছে নিজের বাড়িতে আত্মহত্যা করেন বলে জানান যায়। ওই ব্যক্তির বয়স ৩৭ বছর বয়স। সানোজের পরিবার জানায় গত দুদিন ধরে সে অস্থির হয়ে পড়েছিল। কেরালার সরকার বেশ কয়েকটি এলাকায় বুধবার থেকে রাজ্যের সমস্ত খুচররো মদের বিক্রি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়।

সানোজ নামে এক ব্যক্তি শুক্রবার সকালে তার বাড়ির কাছে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেলে পুলিশ অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করে। জেলা থেকে আগত স্থানীয় স্ব-সরকার মন্ত্রী এ.সি.মৌদিন বলেছেন যে অভাবীদের জন্য পরামর্শ নিশ্চিত করার জন্য সকল পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কেরালা আবগারি দফতর ঘোষণা করেছে, নেশা ও পরামর্শ কেন্দ্রগুলি অ্যালকোহলযুক্ত পানীয়ের অভাবের কারণে শারীরিক বা মানসিক চাপের শিকার ব্যক্তিদের বিনামূল্যে পরিষেবা দেবে। এই পরিষেবাটি এক্সাইজ বিভাগের টোল ফ্রি 14405 নম্বরে কল করেও নেওয়া যেতে পারে। আরও পড়ুন, কর্নাটকে মৃত ৬৫ বছরের বৃদ্ধ, দেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১৮

আবগারি বিভাগ নিখরচায় চিকিত্সা ও কাউন্সেলিং পরিষেবা দেওয়ার জন্য প্রতিটি জেলার একটি করে তালুক হাসপাতালে একটি করে একটি নেশা কেন্দ্র স্থাপন করেছে। দেশে করোনাভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২০। আজ কর্নাটকে (Karnataka) ৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। এএনআই জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তি কর্নাটকের তুমাকুরুতে (Tumakuru) মারা যান। জানা গেছে যে মৃত ব্যক্তি ৫ মার্চ ট্রেনে দিল্লি গেছিলেন এবং ১১ মার্চ তিনি ফিরে আসেন। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, ওই ব্যক্তি যাঁদের যাঁদের সঙ্গে ট্রেনের কামরায় ছিলেন সেই সমস্ত যাত্রীদের সন্ধান করা হচ্ছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কর্নাটকে এনিয়ে তিনজনের মৃত্যু হল। বৃহস্পতিবার এক প্রবীণ মহিলার মৃত্যু হয়। ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুও হয়েছিল কর্নাটকের কালাবুরগিতে।