Uttar Pradesh: 'জুতো চুরি' করে টাকা দাবি করায় থাপ্পড় মারল বর, রাগে বিয়ে ভাঙল কনে
Representational image | (Photo Credits: Unsplash)

সিসৌলি, ১৫ ডিসেম্বর: বিয়েতে কত ধরনের নিয়ম, রীতি মানতে নয়। 'বরের জুতো চুরি' সেরকই একটি রীতি। আর তা করতে গিয়ে বিয়ে বাড়িতে হুলুস্থুলু কাণ্ড। প্রথমে তর্কাতর্কি, তারপর ধাক্কাধাক্কি। শেষ একেবারে মারামারি। যার কারণে বিয়েই ভেঙে গেল। খোলসা করে বলা যাক। 'জুতো চুরির রীতি চলাকালীন বর (Groom) খারাপ ব্যবহার করেন কনের বাড়ির কয়েকজন মহিলার সঙ্গে। কনের (Bride) পক্ষের মহিলারা বরের জুতো কেড়ে নিয়ে তার বিনিময়ে অর্থ দাবি করেছিলেন। আর তা থেকেই শুরু হয় ঝামেলা। শেষে বর ও বরপক্ষকে মারধর করে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। কারণ বিয়ে করতে বেঁকে বসেন খোদ কনে। শনিবার উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) মুজাফ্ফরনগর (Muzaffarnagar) জেলার সিসৌলি (Sisauli village) গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

ঝামেলা শুরু হয়েছিল যখন রীতি অনুসারে কনের পক্ষের মহিলারা বরের জুতো কেড়ে নিয়ে তার বিনিময়ে অর্থ দাবি করেছিলেন। "জুতা চুরাই" রীতি হাসি-মজা করতেই শুরু করা হয়েছিল বলে ধরা হয়। তবে এখানে বর ২২ বছরের বিবেক কুমার রেগে যান। এবং কনের বাড়ির মহিলাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার শুরু করেছিলেন। কনের পরিবারের সদস্যরা বরকে শান্ত হওয়ার পরামর্শ দেন। যদিও তা না হয়ে বর আরও রেগে গালাগালি দিতে থাকেন। শুধু তাই নয়, কনের বাড়ির একজনকে চড়ও মারেন। এরপর কনে এই বিষয়টি জানতে পেরে বিয়ে করতে বেঁকে বসেন। আরও পড়ুন:  Slapping Competition: এক চড়ে কোমায় চলে গেলেন চড় মারা প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন!

এরপর কনের বাড়ির লোকজন বরযাত্রীদের ফেরত পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু বর, তাঁর বাবা এবং দুই আত্মীয়কে আটকে রাখে। তারপর পুলিশকে ডেকে সমঝোতা করা হয়েছিল। যৌতুক হিসাবে নেওয়া ১০ লাখ টাকা কনের পরিবারকে ফিরিয়ে দিতে রাজি হয় বরের পরিবার। স্থানীয় থানার স্টেশন হাউস অফিসার বীরেন্দ্র কাসানা বলেন, "দু'পক্ষের পক্ষ থেকে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। বর-কনের পরিবার থানার বাইরে সমঝোতায় পৌঁছেছেন।"