AAP: 'দেশের শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবছেন কেজরি, বিজেপি ভাবছে সিঙ্গাপুরের কথা'
অরবিন্দ কেজরিওয়াল, ছবি ইনস্টাগ্রাম

 দিল্লি, ১৯ মে: সিঙ্গাপুরে (Singapore) করোনার (Corona) যে ভ্যারিয়েন্ট রয়েছে,তা অত্যন্ত বিপদজনক৷ বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে৷ ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ রুখতে, সিঙ্গাপুরের সঙ্গে ভারতের বিমান যোগাযোগ বন্ধ করা হোক এখনই৷ দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের (Arvind Kejriwal) ওই ট্যুইটের পর ফের করোনা নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে আপ সরকারের টানাপোড়েন শুরু হয়েছে৷

 

সিঙ্গাপুর ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে কেজরিওয়ালের ট্যুইটের পর সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানো হয় সে দেশের সরকারের তরফে৷ কেজরিওয়াল কীভাবে এই ধরনের মন্তব্য করলেন, তা নিয়ে দুই দেশের সম্পর্ক তিক্ত হতে পারে বলে মন্তব্য করেন বিদেশমন্ত্রী ডক্টর এস জয়শঙ্কর৷ ভারত যখন কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সঙ্গে লড়াই করছে, সিঙ্গাপুর তখন পাশে দাঁড়িয়েছে৷ ভারতকে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে সাহায্য করেছে সিঙ্গাপুর৷ তারপরও দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেন এই ধরনের মন্তব্য করে, দুই দেশের সম্পর্ককে কাঠগড়ায় তুলতে চাইছেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন জয়শঙ্কর৷

আরও পড়ুন: Priyanka Chopra: অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে কোভিড মোকাবিলায় হাজির প্রিয়াঙ্কা

বিদেশমন্ত্রীর কথায়, ভারত এবং সিঙ্গাপুর একযোগে কোভিড (COVID 19) মোকাবিলায় কাজ করছে৷ সে দেশের তরফে অক্সিজেন সহ বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা সামগ্রী পাঠিয়ে সাহায্য করা হচ্ছে ভারতকে৷ সেই সময় দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর এই ধরনের মন্তব্য একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে দাবি করা হয় বিদেশ মন্ত্রক্রে তরফে৷

আরও পড়ুন: COVID 19: 'করোনার সিঙ্গাপুরের ভ্যারিয়েন্ট শিশুদের জন্য অত্যন্ত ভয়ঙ্কর, আসতে পারে তৃতীয় ঢেউ'

সিঙ্গাপুর ভ্যারিয়েন্ট মন্তব্যের জেরে যখন কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে শুরু করে মোদী সরকার, সেই সময় পালটা যুক্তি দেয় আপ (AAP)৷ দিল্লির (Delhi) উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ শিশোদিয়া বলেন, আপ সরকার যখন দেশের শিশুদের নিয়ে চিন্তিত, সেই সময় বিজেপি ভাবছে সিঙ্গাপুরের সঙ্গে সম্পর্কের কথা৷ দেশের শিশুদের কীভাবে করোনার হাত থেকে রক্ষা করা যায়, তা না ভেবে, সিঙ্গাপুরের সঙ্গে বৈদেশিক সম্পর্ক ভাল রাখার কথা ভাবছে মোদী সরকার৷ বিজেপি সরকার সব সময় আন্তর্জাতিক মহলে নিজেরে ইমেজকে ভাল রাখার চেষ্টা করে৷ দেশের শিশুদের কথা না ভেবে কেন মোদী সরকার এই ধরনের ব্যবহার করছে,তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মণীশ শিশোদিয়া৷