'ওয়ার' যুদ্ধে হেরে গেলেও শিরদাঁড়া সোজা রেখে ভালো ব্যবসা দুর্গাপুজোয় মুক্তি পাওয়া বাংলা ছবিগুলির
পুজোয় মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলা ছবি পাসওয়ার্ড ও গুমনামী (Photo Credits: Facebook)

কলকাতা, ১০ অক্টোবর: Bengali Movies Box office Collection: বাংলা ছবি বাংলায় মুক্তির জন্য হল পেতে মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হয় পরিচালককে। তাও আবার যদি থাকে বলিউডের বড় তারকার ছবি রিলিজ, তাহলে তো কোথাই নেই। বাংলা ছবির থেকে বেশি হল দখল হয়ে যায় হিন্দি ছবির জন্য। পুজোর আগে হল না পেয়ে বেশ বেগ পেতে হয়েছিল প্রদীপ্ত ভট্টাচার্যের ছবি 'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত' (Rajlokkhi o Srikanta)। এরপর পুজোয় মুক্তি পায় ‘গুমনামী’ (Gumnami), ‘পাসওয়ার্ড’ (Password), ‘মিতিন মাসি’ (Mitin Masi), ‘সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ’ (Satyanweshi Byomkesh)।

তবে হিন্দি ছবির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ভালোই ব্যবসা করেছে বাংলা ছবিগুলি। হল মালিক, ডিস্ট্রিবিউটর এবং প্রযোজনা সংস্থা থেকে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে এ বারের পুজোয় সবচেয়ে এগিয়ে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘গুমনামী’। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে অরিন্দম শীলের 'মিতিন মাসি', তৃতীয় স্থানে আছে কমলেশ্বর মুখার্জির 'পাসওয়ার্ড' ও চতুর্থ স্থানে আছে সায়ন্তন ঘোষালের ‘সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ’। আরও পড়ুন, নিষিদ্ধ হোক 'Bigg Boss', মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরকে চিঠি লিখে গর্জে উঠে আন্দোলনে করনি সেনা

'গুমনামী' ব্যবসা করেছে ২.৫৫ কোটি টাকা। 'মিতিন মাসি' ব্যবসা করেছে ১.২৭ কোটি টাকা। 'পাসওয়ার্ড' ৮৫ লাখ ও 'সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ' ৭৯ লাখ টাকার ব্যবসা করেছে। বাংলা ছবির সঙ্গে মুক্তি পেয়েছিল হৃতিক রোশন- টাইগার শ্রফের ‘ওয়ার’। স্বাভাবিক ভাবেই ‘ওয়র’-এর দখলে ছিল অধিকাংশ হল, যা নিয়ে টলিউডের প্রযোজক-পরিচালকদের চিন্তার শেষ ছিল না। গোটা দেশে চুটিয়ে ব্যবসা করেছে ‘ওয়ার’। ৭ দিনে ২০০ কোটি টাকার ব্যবসা করেছে এই ছবিটি। এই রাজ্য থেকে সাড়ে চার কোটি টাকা রোজগার করে 'ওয়ার'। হৃতিকের ছবিটি না থাকলে নিঃসন্দেহে বাংলা ছবি আরও ভাল ব্যবসা করত বলে ধারণা প্রযোজক ও পরিচালকদের। অল্প শো নিয়ে ইংরেজি ছবি ‘জোকার’ও এ রাজ্যে ভাল ফল করেছে। প্রচুর মানুষ এই ছবিটি দেখতে যায়। ছবিটিও নিঃসন্দেহে ভালো ছবি।

তবে সৃজিত মুখার্জির 'গুমনামী' কনটেন্টের জোরে ছক্কা হাঁকিয়েছে জব্বর। ষষ্ঠী থেকে রমরমিয়ে চলেছে এই ছবিটি। যদিও বাকি ছবিগুলির তুলনায় এগুলি হল এবং শো কম পেয়েছিল। সেই বিচারে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের ব্যোমকেশ বক্সীর পারফরম্যান্স মন্দ নয়।