Donald Trump: ‘কোভিডে ভয় পাবেন না’, হোয়াইট হাউসে ফিরে ফের স্বমূর্তিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প
ডোনাল্ড ট্রাম্প (Photo Credits: Getty Images)

ওয়াশিংটন ডিসি, ৬ অক্টোবর: “করোনা কোনও ব্যাপারই নয়। কোভিডকে খামোকা ভয় পাওয়ার কিছু নেই। একে মাথায় চড়তে দেবেন না। তবে মনে রাখবেন ২ লাক মার্কিন নাগরিক ইতিমধ্যেই করোনার বলি হয়েছেন। তাই সাবধান।” মারণ রোগ সারিয়ে হোয়াইট হাউসে ফিরতেই ফের বেপরোয়া মনোভাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump)। বলেই ফেললেন মনের কথা। করোনার ভয় যে নেই তা মুখের মাস্ক খুলে ফেলাতেই স্পষ্ট। এবার তিনি পূর্ণোদ্যমে নির্বাচনী প্রচারের কাজ শুরু করে দেবেন। এদিকে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরে মার্কিন প্রেসিডেন্টের শারীরিক অবস্থা নিয়ে নানা রকম খবর সামনে ওয়াল্টার রিড মিলিটারি হাসপাতাল থেকেই জানানো হয়েছে, ট্রাম্পের শরীর খুব একটা ভাল নেই। অক্সিজেনের মাত্রা দু’বার কমেছে তাঁর।

এদিকে হোয়াইট হাউসের দাবি প্রেসিডেন্ট পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। যদিও চিকিৎসক শন কনলি বলেছেন প্রেসিডেন্ট এখনও ভাইরাসমুক্ত নন। তবে তা সত্ত্বেও হোয়াইট হাউসে ফিরে মাস্ক খুলে ফেলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সংবাদ সংস্থা সিএনএন জানিয়েছে, প্রেসিডেন্সিয়াল হেলিকপ্টার থেকে অবতরণের পর ব্লু রুম ব্যালকনি দিয়ে হোয়াইট হাউসে প্রবেশ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সাউথ পোর্টিকো দিয়ে উপরে চলে আসেন। এরপর ব্যালকনি থেকে দর্শকদের উদ্দেশে থাম্বস আপ দেখানোর আগে মাস্ক খুলে পকেটে পুরে নেন তিনি। ট্রাম্পের কাণ্ডকারখানা দেখে অনেকেই প্রশ্ন তোলেন, কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পরেও একজন রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে কী ভাবে এমন ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ কাজ করতে পারলেন ট্রাম্প? তাতে অবশ্য মার্কিন প্রসেডিন্টের কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই। ওই দিনই টুইটারে পোস্ট করা এক ভিডিওয় ট্রাম্পকে বলতে দেখা যায়, “কোভিডের চিকিৎসা চলাকালীন অনেক কিছুই শিখলাম, জানলাম। এটাই আসল বিদ্যালয়। বিষয়টি ভালো ভাবে বুঝে নিয়েছি।” আরও পড়ুন-Donald Trump: এখনও বিপদমুক্ত নন, হোয়াইট হাউসে ফিরেই মাস্ক খুলে ফেললেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

তবে হোয়াইট হাউসের সাংবাদিকরা যাঁরা ওয়াল্টার রিড মিলিটারি মেডিক্যাল হাসপাতালে এসেছিলেন প্রেসিডেন্সিয়াল হেলিকপ্টারে ওটার আগে তাঁদের উদ্দেশে ধন্যবাদ জানান ট্রাম্প। অন্যদিকে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোভিডের উপসর্গ ধরা পড়ার পর এক সপ্তাহ থেকে দশ দিন খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারও কারও এর মধ্যে স্বাস্থ্যের অবনতিও হতে পারে। তাই এই সময়টা পর্যবেক্ষণের মধ্যে থাকা প্রয়োজন। কিন্তু, ডোনাল্ড ট্রাম্প ভর্তি হওয়ার দু’দনের মধ্যেই ছাড়া পাওয়ায় যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তাঁরা।